Trial Run

গোপনে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু’র সৌদি আরব সফর

Israeli media reported that Crown Prince Salman met Israeli Prime Minister Benjamin Netanyahu, Photo : Reuters

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু রবিবার গোপনে সৌদি আরব সফর করেছেন বলে ইসরায়েলের গণমাধ্যমের প্রকাশিত সংবাদ থেকে জানা গেছে।

ইসরাইলি নেতা নেতানিয়াহু সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান এবং যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর সঙ্গে বৈঠক করেছেন বলে বিবিসি’র এক প্রতিবেদনা বলা হয়েছে। । তবে রাষ্ট্রিয়ভাবে কোনো পক্ষই এখনো এই খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেনি।

এই খবর সত্যি হলে এটি হবে ঐতিহাসিকভাবে বৈরি দেশ দুটির মধ্যে প্রথম কোনো বৈঠক। একই সঙ্গে প্রথম কোনো ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রীর সৌদি আরব সফর হিসাবে এই ঘটনাকে আন্তর্জতিক মিডিয়া বেশ গুরুত্বের সাথে দেখছে। ওই বৈঠকে ইসরায়েলি গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের প্রধান ছিলেন বলে ওয়াশিংটন পোস্ট খবর প্রকাশ করেছে।

এদিকে ইসরায়েলি সরকারী সূত্রের উদ্বৃতি দিয়ে দেশটির জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম হারেৎজ বলছে, এই সফরের ব্যাপারে ইসরায়েলের বিকল্প প্রধানমন্ত্রী, প্রতিরক্ষামন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীও অন্ধকারে ছিলেন।

একটি টুইট বার্তায় ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রীর একজন উপদেষ্টা এই বৈঠকটি হয়েছে বলে আভাস দিলেও এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো পক্ষই এ ব্যাপারে কিছু জানায়নি।

ইসরায়েলি সংবাদ মাধ্যমে ওয়াইনেটের বরাত দিয়ে দি ওয়াশিংটন পোস্ট লিখেছে, সৌদি আরবের উপকূলীয় শহর নিওমে রবিবার বিকালের দিকে কয়েক ঘণ্টা অতিবাহিত করেছেন বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। এই সময় তার সঙ্গে ইসরায়েলি গুপ্তচর বাহিনী মোসাদ এর প্রধান ইয়োসি কোহেন ছিলেন। সেখানে তিনি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান আর মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও-র সঙ্গে বৈঠক করেন।

হারেৎজ-এর খবরে প্রকাশ, বিমান চলাচলের তালিকায় দেখা যাচ্ছে, ইসরায়েল থেকে একটি বিমান সরাসরি সৌদি মেগা-সিটি নিওমে গিয়েছে। পাঁচ ঘণ্টা পরে সেটা আবার ফেরত এসেছে।

অনেকদিন ধরেই ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন চেষ্টা করছে যাতে ইসরায়েলের সঙ্গে সৌদি আরবের সম্পর্ক স্বাভাবিক হয়ে ওঠে।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের চেষ্টায় গত অগাস্টে সংযুক্ত আরব আমিরাত আর বাহরাইন ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার উদ্যোগ নিয়েছে। তারা বাণিজ্য চালু করা, নিরাপত্তা ও পর্যটনের ক্ষেত্রে সহযোগিতার জন্য একটি সমঝোতা করেছে। ওই সমঝোতাকে প্রতারণা বলে বর্ণনা করেছে ফিলিস্তিনি নেতারা।

এদিকে, মহানবী (সা.)’র পবিত্র জন্মস্থান সৌদি আরবে ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে সফরের অনুমতি দেয়ার ব্যাখ্যা চেয়েছে ফিলিস্তিনের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস।

সোমবার হামাসের প্রভাবশালী নেতা সামি আবুযুহরি বলেছেন, সৌদি আরবে দখলদার ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর গোপন সফর গোটা মুসলিম উম্মাহর প্রতি অবমাননা। এর মাধ্যমে গোটা মুসলিম বিশ্বকে অপমান করা হয়েছে‌। একইসঙ্গে এর মাধ্যমে ফিলিস্তিনি জাতির সব অধিকারকে পুরোপুরি উপেক্ষা করা হয়েছে। এ বিষয়ে সৌদি আরবকে অবশ্যই ব্যাখ্যা দিতে হবে। তিনি আরও বলেছেন, নেতানিয়াহুর এই সফরের ঘটনা অত্যন্ত বিপজ্জনক।

ইরানে প্রকাশিত অন্য একটি খবরে জানা যায়, ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রীর সৌদি আরব সফরের সত্যতা স্বীকার করে দেশটির শিক্ষামন্ত্রী ইউভ গ্যালান্ট বলেছেন,সত্যিই সফর ও বৈঠক হয়েছে এবং এটা ইসরাইলের জন্য চমৎকার অর্জন। ইসরাইলি এই মন্ত্রী যখন এ বিষয়ে কথা বলছিলেন তখন তাকে বেশ উল্লসিত দেখা যাচ্ছিল বলে সংবাদ মাধ্যমটি জানায়।

ছড়িয়ে দিনঃ
  • 85
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    85
    Shares

আপনার মতামত জানানঃ