Trial Run

আইনপ্রয়োগের চিত্র ও গণমাধ্যম: ২২ জানুয়ারি ২০২১

স্টেটওয়াচ রিসার্চ নেটওয়ার্ক কাজ করছে বাংলাদেশে আইনপ্রয়োগের সার্বিক চিত্র তুলে ধরার পাশাপাশি মতপ্রকাশের স্বাধীনতা সংক্রান্ত বাস্তবতা নিয়ে। এর অংশ হিসেবে স্টেটওয়াচ নিউজে আমরা প্রতিদিনকার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা ও গণমাধ্যম সংক্রান্ত খবরাখবরগুলো সংক্ষেপে তুলে ধরার উদ্যোগ নিয়েছি। প্রতিদিন নিম্নোক্ত মাধ্যমসমূহ থেকে সংবাদগুলো সংগ্রহ ও তা নথিবদ্ধ করছে আমাদের কর্মীরা: প্রথম আলো, কালের কণ্ঠ, যুগান্তর, সমকাল, নয়া দিগন্ত, ইত্তেফাক, দেশ রূপান্তর, ডেইলি স্টার, নিউ এজ, দ্য ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেস, বাংলা ট্রিবিউন, বিডিনিউজ২৪ ডটকম, আমাদের সময়, মানবজমিন। আমরা আশা করি, এই প্রতিবেদন নিয়মিত প্রকাশের মাধ্যমে জনগণের তথ্যপ্রাপ্তির অধিকার আরো শক্তিশালী হবে।

২২ জানুয়ারি ২০২১, শুক্রবার, ৮ মাঘ ১৪২৭, পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত
আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও গণমাধ্যম সংক্রান্ত নির্বাচিত খবরের সার-সংক্ষেপ

৯ বছরে ঢাকায় ১১৬ পুলিশের নামে ফৌজদারি মামলা

প্রথম আলো
বিভাগ: রাষ্ট্রীয় বাহিনী

গুরুতর ফৌজদারি অপরাধে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অনেক সদস্যের জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে। গত ৯ বছরে পুলিশ বাহিনীর ১১৬ সদস্যের বিরুদ্ধে রাজধানীর বিভিন্ন থানা ও ঢাকার বিভিন্ন আদালতে ফৌজদারি মামলা হয়েছে। তাঁদের বিরুদ্ধে মাদক, ডাকাতি, অপহরণ, চাঁদাবাজি ও ধর্ষণের মতো অপরাধে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে। বিশেষ করে মাদকসংশ্লিষ্ট অপরাধে জড়িয়ে পড়ার অভিযোগ রয়েছে অনেকের বিরুদ্ধে।

ঢাকা মহানগরের সিএমএম, ঢাকার সিজেএম আদালত, ঢাকার মহানগর ও ঢাকার দায়রা জজ আদালত এবং ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের সংশ্লিষ্ট সূত্র এসব তথ্য নিশ্চিত করেছে।

ঊর্ধ্বতন পুলিশ ও আইন কর্মকর্তারা বলছেন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের ফৌজদারি অপরাধে জড়িয়ে পড়া খুবই শঙ্কার। তাই যাঁরা ফৌজদারি অপরাধে জড়িয়ে পড়েছেন, তাঁদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলার পাশাপাশি ফৌজদারি মামলা দিয়ে শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। প্রতিটি মামলার তদন্ত হতে হবে নিরপেক্ষ। তা ছাড়া ভবিষ্যতে যাতে তাঁরা অপরাধে জড়িত না হতে পারেন, সে জন্য কঠোর প্রশাসনিক নজরদারি অব্যাহত রাখতে হবে।

পুলিশের তিন এসপিকে বদলি

ইত্তেফাক
বিভাগ: রাষ্ট্রীয় বাহিনী

পুলিশ সুপার (এসপি) পদমর্যাদার তিন কর্মকর্তাকে বদলি করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের পুলিশ-১ অধিশাখার উপসচিব ধনঞ্জয় কুমার দাস স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ বদলি করা হয়।

বদলিকৃতরা হলেন- নরসিংদীর এসপি প্রলয় কুমার জোয়ারদারকে যশোর জেলার এসপি, যশোর জেলার এসপি মুহাম্মদ আশরাফ হোসেনকে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) উপ-কমিশনার (ডিসি), শেরপুর জেলার এসপি কাজী আশরাফুল আজীমকে নরসিংদী জেলার এসপি হিসাবে বদলি করা হয়েছে।

 

মূলধারার গণমাধ্যমই শেষ ভরসা

প্রথম আলো
বিভাগ: গণমাধ্যম

বাংলাদেশে গণমাধ্যমের পাঠক ও দর্শকের বেশ শক্ত একটা ভিত আছে। কিন্তু এই গণমাধ্যম সব বয়সের সব এলাকার মানুষের চাহিদা পূরণ করতে পারছে না। বিজ্ঞাপন থেকে আয় কমেছে। আছে নিয়ন্ত্রণমূলক আইন। খবরের খোঁজে মূলধারার পরিবর্তে বিকল্প মাধ্যমের প্রতি ঝুঁকছেন বড় সংখ্যক মানুষ। তবে গণমাধ্যম-সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, সঠিক সংবাদের খোঁজে মূলধারার গণমাধ্যমই শেষ ভরসা। দরকার উদ্ভাবন শক্তিকে কাজে লাগানো ও কৌশলগত কিছু পরিবর্তন আনা।

এমন একটা প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশের গণমাধ্যমের ভবিষ্যৎ কী, সে সম্পর্কে ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট ইনিশিয়েটিভ (এমআরডিআই) ও ফোয়ো মিডিয়া ইনস্টিটিউট আজ বৃহস্পতিবার প্রকাশ করেছে ‘লিডারশিপ অর স্ট্যাগনেশন, দ্য ফিউচার অব মিডিয়া ভায়াবিলিটি ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক গবেষণা প্রতিবেদন। ও উপলক্ষে আয়োজিত ওয়েবিনারে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক, দেশের প্রথিতযশা সাংবাদিক, বেসরকারি সংগঠনের প্রতিনিধিরা কথা বলেন। এমআরডিআই ও ফোয়ো মিডিয়া ইনস্টিটিউটের পক্ষে গবেষণা করেছেন হংকং বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাডজাঙ্কট ফ্যাকাল্টি রস সেটেলস। তাঁকে সহযোগিতা করেন সাংবাদিক তানিম আহমেদ। রস সেটেলস দেখিয়েছেন, বাংলাদেশে গণমাধ্যমের পাঠক ও দর্শক আছেন। কিন্তু অঞ্চল ও বয়সভেদে খবর জানার উৎস আলাদা। শহরাঞ্চলে অল্প বয়স্করা অনলাইন ও টিভি দেখছে। বয়স্করা এখনো টিভি দেখেন ও খবরের কাগজ পড়েন। গ্রামাঞ্চলে তরুণদের কাছে খবরের মূল উৎস ফেসবুক। তারা টিভিও দেখছে। বয়স্করা টিভি দেখেন, স্থানীয় সংবাদপত্র পড়ে থাকে একটি ছোট অংশ।

কার্টুনিস্ট কিশোর ও লেখক মোশতাকের মুক্তি চায় অ্যামনেস্টি

প্রথম আলো
বিভাগ: ডিজিট্যাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট

কার্টুনিস্ট আহমেদ কবীর কিশোর ও লেখক মোশতাক আহমেদকে অবিলম্বে নিঃশর্তে মুক্তি দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। এ ছাড়া শিল্পী অনন্য মামুন, শাহীন মৃধা, রিতা দেওয়ান, কার্টুনিস্ট কিশোর ও লেখক মুশতাকের বিরুদ্ধে সব ধরনের অভিযোগ প্রত্যাহার করতে কর্তৃপক্ষকে আহ্বান জানিয়েছে।

গতকাল ‍শুক্রবার অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল তাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে এই আহ্বান জানিয়েছে।

লন্ডনভিত্তিক আন্তর্জাতিক এই মানবাধিকার সংগঠনটি বলছে, বাংলাদেশে সম্প্রতি নির্বিচারে আটক কিংবা অন্যান্য উপায়ে হয়রানির মাধ্যমে শিল্পীদের মতপ্রকাশের অধিকার ব্যাহত হওয়ার মতো ঘটনা বেড়ে যাওয়ায় তারা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন।

অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের এবং আন্তর্জাতিক আইনে স্বীকৃত জনগণের মুক্ত মত ও সৃষ্টিশীলতার অধিকার নিশ্চিত করার আহ্বান জানিয়েছে। একই সঙ্গে অবিলম্বে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ বাতিল কিংবা এর নিবর্তনমূলক ধারা পরিবর্তনের জন্য বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

 

‘Attacks’ on Freedom of Expression: Amnesty Int’l voices concern
Urges govt to release cartoonist Kishore, writer Mushtaq

The Daily Star
Category : Digital Security Act

Amnesty International yesterday expressed deep concern over the recent arbitrary detention and other forms of harassment of artists who are facing increasing attacks on their right to freedom of expression in Bangladesh. In a statement, the rights watchdog called on the Bangladesh authorities to immediately and unconditionally release all artists unlawfully detained, drop the charges against them, and guarantee people’s right to freedom of artistic expression and creativity, as enshrined in domestic and international laws.

Amnesty called on the authorities to immediately and unconditionally release cartoonist Ahmed Kabir Kishore and writer Mushtaq Ahmed since they have been detained solely for the peaceful exercise of their right to freedom of expression, and drop all charges against film director Anonno Mamun, actor Shaheen Mridha, folk singer Rita Dewan, cartoonist Kishore, and writer Mushtaq.

It also called on the authorities to urgently repeal the Digital Security Act 2018 or substantially amend its repressive provisions.

The rights body said the right to freedom of artistic expression and creativity is enshrined both in the International Covenant on Civil and Political Rights (ICCPR) and in the International Covenant on Economic, Social, and Cultural Rights (ICESCR). Bangladesh is a state party to both instruments.

ছড়িয়ে দিনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আপনার মতামত জানানঃ