Trial Run

ট্রাম্পের ভয়ে ভীত আমেরিকা, রাজ্যে রাজ্যে সেনা মোতায়েন

ছবি : সংগৃহীত

ক’দিন আগেই আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্র হিসেবে বিবেচিত ক্যাপিটল হলে ট্রাম্প সমর্থকদের হামলায় প্রাণ হারায় কমপক্ষে পাঁচজন, আহত হয় অনেকে। এই হামলার পেছনে ট্রাম্পের উস্কানি রয়েছে অভিযোগে ট্রাম্প ইতিমধ্যে অভিশংসিত হয়েছেন। নিজ দলের নেতাকর্মী সহ চতুর্দিকে ট্রাম্পকে চেপে ধরলেও দমে যাননি তিনি। এখনো আগের অবস্থানেই দাঁড়িয়ে আছেন। এদিকে আগামী ২০ জানুয়ারি আমেরিকার নব নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের শপথ নেওয়ার কথা। যেখানে উপস্থিত না থাকার ঘোষণা আগে থেকেই জারি রেখেছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। আমেরিকা এখন আতঙ্ক আছে যে, যেকোনো সময় ট্রাম্প ও ট্রাম্পের সমর্থকরা হামলা করে বসতে পারে। এই ভয়ে গত সপ্তাহের পুনরাবৃত্তি ঠেকাতে আমেরিকার ৫০ টি অঙ্গরাজ্যে ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েন করা হয়েছে।

বিবিসি, এনডিটিভি সূত্রে জানা যায়, যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে সশস্ত্র হামলার আশঙ্কা করা হচ্ছে। এছাড়া বিদায়ি প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ক্ষমতাচ্যুত করার পদক্ষেপের প্রতিবাদ হিসাবে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে সহিংসতা ছড়ানো হতে পারে বলে সতর্ক করেছে গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই। এমন আশঙ্কায় দেশটির রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিসহ ৫০টি অঙ্গরাজ্যে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। সারাদেশ থেকে ন্যাশনাল গার্ডের সদস্যদের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে মোতায়েন করা হচ্ছে। ম্যারিল্যান্ড, মেক্সিকো এবং ইউটা অঙ্গরাজ্যের গভর্নর জরুরি অবস্থা জারি করেছে। এছাড়া ক্যালিফোর্নিয়া, পেনিসিলভেনিয়া, মিশিগান, ভার্জিনিয়া, ওয়াশিংটন এবং উইসকনসিনে জাতীয় নিরাপত্তা রক্ষী মোতায়েন করছে। এবং টেক্সাস শনিবার থেকে বাইডেনের শপথ অনুষ্ঠান পর্যন্ত তার রাজধানী বন্ধ রাখছে।

টেক্সাসের জননিরাপত্তা বিভাগের পরিচালক জানিয়েছে, সহিংস উগ্রপন্থীরা অপরাধমূলক সংঘাত চালানোর জন্য পরিকল্পিত বিক্ষোভ অনুপ্রবেশ করতে পারে।

বিশ্লেষকদের মতে, নির্বাচনের সময় যেসব রাজ্যে ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকান শিবিরে বৈরীতা দেখা গেছে সেগুলোতে সহিংসতার ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি। সেগুলোর একটি মিশিগান, এরইমধ্যে কর্তৃপক্ষ রাজ্য ক্যাপিটল ঘিরে ছয় ফুট নিরাপত্তা বেষ্টনী তৈরি করেছে।

বিশ্লেষকেরা বলছেন, নির্বাচনের জালিয়াতি ও কারচুপি নিয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভুয়া দাবির পক্ষে যেসব রাজ্যে ট্রাম্প–সমর্থকেরা নির্বাচন–পরবর্তী সময়ে সভা–সমাবেশ করেছে; সেসব এলাকায় পরিকল্পিত সহিংসতা হতে পারে।

অভিষেক অনুষ্ঠানে যে ন্যাশনাল মলে হাজার হাজার মানুষের সমাগম হতো, এই স্থানটি সিক্রেট সার্ভিসের অনুরোধে ইতিমধ্যে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এই সংস্থাটি মার্কিন প্রেসিডেন্টের সুরক্ষায় বিশেষভাবে কাজ করে।

স্থানীয় কর্মকর্তারাও বলছেন, মানুষের উচিৎ হবে এই অভিষেক অনুষ্ঠান আলাদাভাবে দেখা।

জো বাইডেনের শপথ অনুষ্ঠানে সমর্থকদের ঘরে বসে ভার্চ্যুয়ালি যোগ দেওয়ার জন্য টিকিট দেওয়া হচ্ছে। আইনপ্রণেতারা শপথ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে নিজ নিজ এলাকার ২০০ জন সমর্থকদের ব্যক্তিগত আমন্ত্রণ জানাতে পারেন। এবার আইনপ্রণেতারা নিজেরাই দুজনের জন্য আমন্ত্রণপত্র পাচ্ছেন।

মেট্রো ওয়াশিংটনের দুই বিমানবন্দরেই কড়া নিরাপত্তা জারি করা হয়েছে। প্রশিক্ষিত কুকুর নিয়ে নিরাপত্তাকর্মীরা তল্লাশি চালাচ্ছে। হোটেলগুলো নিরাপত্তার জন্য বুকিং বাতিল করে দিচ্ছে। আগামী সপ্তাহের জন্য ওয়াশিংটন মেট্রো এলাকায় কোনো আবাসিক বুকিং পাওয়া যাচ্ছে না। ওয়াশিংটন ডিসিমুখী রাস্তাগুলোতে নজরদারি চলছে। বাস, ট্রেনেও তল্লাশি চলছে।

এই কঠোর নিরাপত্তার মধ্যেই গত শুক্রবার ডিসি থেকে এক অস্ত্রধারী ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার কাছে এমন পরিচয়পত্র পাওয়া গেছে যা সরকারের ইস্যু করা নয়। নিরাপত্তা চৌকিতে তল্লাশি চালানোর সময় ওই ব্যক্তির কাছ থেকে অন্তত একটি আগ্নেয়াস্ত্র ও ৫০৯ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।

গত ৬ জানুয়ারি মার্কিন ক্যাপিটল ভবনে নজিরবিহীন হামলা চালিয়েছে ট্রাম্প সমর্থকরা। সংঘাতে পাঁচ জন নিহত হয়েছে। এনিয়ে এখন পর্যন্ত শতাধিক লোককে গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়া এনিয়ে তদন্ত চলছে।

বাইডেনের শপথের দিন সকালেই হোয়াইট হাউস ছাড়বেন বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। প্রেসিডেন্ট হিসেবেই আগামী বুধবার সকালে হোয়াইট হাউস ত্যাগ করবেন ট্রাম্প। শেষবারের মতো এয়ারফোর্স ওয়ান বিমানে করে চার বছরের আবাসন ত্যাগ করবেন তিনি। ওয়াশিংটন ডিসি ছেড়ে ফ্লোরিডা যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন ট্রাম্প। ফলে বাইডনের শপথ অনুষ্ঠানে ট্রাম্পের না থাকার বিষয়টি মোটামুটি নিশ্চিত। প্রথা ভেঙে ট্রাম্প হোয়াইট হাউস ছাড়ার পরিকল্পনা করলেও বাইডেনের অভিষেক অনুষ্ঠানে সস্ত্রীক থাকছেন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স।

এসডব্লিউ/এমএন/কেএইচ/১২৪৫

ছড়িয়ে দিনঃ
  • 41
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    41
    Shares

আপনার মতামত জানানঃ