Trial Run

অ্যান্টার্কটিকাতেও করোনাভাইরাসের ছোবল

শুভ্র বরফে আচ্ছাদিত মহাদেশ অ্যান্টার্কটিকায় প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কারও সন্ধান মিলল এ রোগের আবির্ভাবের এক বছরের মাথায়।

চিলির সেনাবাহিনী জানিয়েছে, তারা অ্যান্টার্কটিকা উপদ্বীপে অবস্থিত বার্নার্ডো ও’হিগিনস গবেষণা কেন্দ্রের ৩৬ জনের দেহে প্রাণঘাতী এ ভাইরাসের উপস্থিতি পেয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে ২৬ জনই সেনাবাহিনীর সদস্য, বাকি ১০ জন ওই গবেষণা কেন্দ্রের ব্যবস্থাপনা কর্মী। তাদের সবাইকে গবেষণা কেন্দ্রটি থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

বৃটিশ সংবাদসংস্থা বিবিসি জানিয়েছে, বার্নার্ডো ও’হিগিনস গবেষণা কেন্দ্রে রসদ ও কর্মী নিয়ে যাওয়া একটি জাহাজ ফেরত আসার পর জাহাজটির ৩ জনের দেহে করোনাভাইরাস মিলেছে বলে চিলির নৌবাহিনী নিশ্চিত করার কয়েকদিন পর অ্যান্টার্কটিকায় এ ৩৬ জনের কোভিড-১৯ ধরা পড়ল।

অ্যান্টার্কটিকায় রোগী শনাক্ত হওয়ার মাধ্যমে বিশ্বের ৭টি মহাদেশের সবগুলোতেই প্রাণঘাতী এ করোনাভাইরাসের উপস্থিতি নিশ্চিত হল। চিলির নৌবাহিনী জানায়, রসদ নিয়ে যাওয়া তাদের জাহাজটি ২৭ নভেম্বর গবেষণা কেন্দ্রে পৌঁছায়; জাহাজটি ১০ ডিসেম্বর চিলির টেলকুহানো নৌ ঘাঁটিতে ফিরে আসার পর তিন ক্রুর শনাক্তকরণ পরীক্ষার ফল ‘পজিটিভ’ আসে।

অ্যান্টার্কটিকায় যাওয়ার আগে রওনা হওয়া সবার পিসিআর টেস্ট হয়েছিল এবং তাদের সবার ফল ‘নেগেটিভ’ এসেছিল বলেও দাবি চিলির নৌবাহিনীর। বার্নার্ডো ও’হিগিনস গবেষণাকেন্দ্রটি হচ্ছে অ্যান্টার্কটিকা মহাদেশে থাকা চিলির চারটি স্থায়ী ঘাঁটির একটি; এটি সেনাবাহিনী পরিচালনা করে।

লাতিন আমেরিকার ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর মধ্যে ষষ্ঠ স্থানে থাকা চিলিতে এখন পর্যন্ত ৫ লাখ ৮৯ হাজারের বেশি কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছে।

চিনের উহানে গত বছরের ডিসেম্বরের শেষের দিকে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছিল। তার পর গত বছর খানেক ধরে একের পর এক দেশে ছোবল বসিয়েছে প্রাণঘাতী ভাইরাস। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, এখনও পর্যন্ত দু’শতাধিক দেশে ছোবল বসিয়েছে করোনা। মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত গোটা বিশ্বজুড়ে আক্রান্ত হয়েছেন ৭ কোটি ৭৯ লক্ষ ২৭ হাজার ৩৫১ জন। আর মারণ ভাইরাসের ছোবলে প্রাণ হারিয়েছেন ১৭ লক্ষ ১৩ হাজার ৩৬৯ জন। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে করোনার সঙ্গে জীবন-মৃত্যুর লড়াই চালাচ্ছেন এক লক্ষ ৬ হাজার ২৫১ জন।

ফাইজার-বায়োএনটেক, মডার্না বায়োটেক সহ একাধিক সংস্থার পক্ষ থেকে ইতিমধ্যেই জরুরি ব্যবহারের জন্য ভ্যাকসিনও আনা হয়েছে। কিন্তু তার মধ্যে নয়া বিপদ হয়ে দেখা দিয়েছে মারণ ভাইরাসের নয়া স্ট্রেন। ব্রিটেনসহ ইউরোপের পাঁচটি দেশে ইতিমধ্যে নতুন প্রজাতির করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। আর তাতেই বিশ্বজুড়ে নতুন করে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে।

নতুন প্রজাতির করোনাভাইরাস নিয়ে যখন চারিদিকে উদ্বেগ আর উ‍ৎকন্ঠা, ঠিক তখনই দুঃসংবাদ শুনিয়েছে স্পেনের এক সংবাদমাধ্যম। ওই সংবাদমাধ্যমের দাবি, অ্যান্টার্কটিকার অন্তর্গত চিলির জেনারেল বার্নার্ডো ও’হিগিন্স রিকেলমে রিসার্চ বেসে ৩৬ জনের শরীরে করোনাভাইরাস মিলেছে। সংক্রমণ রুখতে অ্যান্টার্কটিকায় যাবতীয় গবেষণার কাজ স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এসডব্লিউ/নসদ/২৩৪২

ছড়িয়ে দিনঃ
  • 9
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    9
    Shares