Trial Run

মুসলিম দেশ নাইজারের সঙ্গে ইসরাইলের পূর্ণাঙ্গ সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার আলোচনা

মোহাম্মাদ বাজুম, প্রেসিডেন্ট পদপার্থী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ইসরাইলের সঙ্গে পূর্ণাঙ্গ সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার জন্য গোপন আলোচনা শুরু করেছে পশ্চিম আফ্রিকার মুসলিম দেশ নাইজার। সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন এবং সুদান ইসরাইলের সঙ্গে পূর্ণাঙ্গ কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার ব্যাপারে চুক্তি সই করার পর নাইজার একই পথ অনুসরণ করছে।

ইসরাইলের হিব্রু ভাষার দৈনিক পত্রিকা ইয়েদিওত অহরোনোথ গতকাল (শুক্রবার) এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ইসরাইলের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এখন এই জল্পনা ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে যে, সর্বশেষ মুসলিম রাষ্ট্র হিসেবে পশ্চিম আফ্রিকার দেশ নাইজার ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে পারে।

আফ্রিকার পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত সম্পূর্ণ স্থলবেষ্টিত রাষ্ট্র নাইজার। দেশটির শতকরা ৮০ ভাগ এলাকাজুড়ে রয়েছে সাহারা মরুভূমি। পুরো নাম দ্য রিপাবলিক অব নাইজার।

নাইজারের পলীয় যুগের সন্ধান পাওয়া গেছে। উপনিবেশকারীদের আগমনের আগে এখানে অনেক রাজত্বের পত্তন হয়েছিল। ইউরোপীয়রা সর্বপ্রথম আসে ১৮ শতকের শেষদিকে। ১৮৮৩ থেকে ১৮৯৯ সাল পর্যন্ত দেশটি ফ্রান্সের দখলে ছিল। ১৯০১ সালে নাইজার একটি সামরিক এলাকায় পরিণত হয় এবং ১৯০৪ সালে ফরাসি নিয়ন্ত্রিত পশ্চিম আফ্রিকার একটি অংশ হিসেবে পরিচিতি লাভ করে। নাইজার ১৯৫৮ সালের ১৮ ডিসেম্বর ফ্রান্সের একটি স্বায়ত্তশাসিত প্রজাতন্ত্র হিসেবে স্বীকৃতি পায়; ১৯৬০ সালের আগস্টে পূর্ণ স্বাধীনতা লাভ করে। ১৯৭৪ সালের ১৫ এপ্রিল নাইজারের প্রথম প্রেসিডেন্ট হামানি দিওরি এক সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতাচ্যুত হন। অভ্যুত্থানের নেতা লে. মিনি কাউচি সংবিধান বাতিল ঘোষণা করেন। তিনি সংসদ ভেঙে দেন এবং রাজনৈতিক দল নিষিদ্ধ করেন। পরে ১৯৯৩ সালে নাইজারে প্রথম অবাধ নির্বাচন হয়।

এটি ১৬০০০ ফুট উত্তর অক্ষাংশ এবং ৮০০০ ফুট পূর্ব দ্রাঘিমার মধ্যে অবস্থিত। নাইজারের উত্তরে আলজেরিয়া ও লিবিয়া, দক্ষিণে নাইজেরিয়া ও বেনিন, পূর্বে চাঁদ এবং পশ্চিমে বুরকিনা ফাসো ও মালি। দেশটির আয়তন প্রায় ১২ লাখ ৬৭ হাজার বর্গকিলোমিটার। আয়তনের দিক থেকে এটি বিশ্বের ২২তম বৃহত্তম দেশ। ২০১৬ সালের হিসাব অনুযায়ী দেশটিতে মোট জনসংখ্যা ১ কোটি ৮৬ লক্ষ ৩৮ হাজার ৬০০ এবং মোট জনসংখ্যার ৮০ শতাংশ ইসলাম ধর্মের অনুসারী। বাকি ২০ শতাংশ খ্রিস্টান ও আদিধর্ম বিশ্বাসী

সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে ইসরাইলের গণমাধ্যমে খবর বের হচ্ছে যে, সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান নাইজারের কর্মকর্তাদেরকে ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার ব্যাপারে উৎসাহিত করছেন।

ইসরাইলের অহরোনোথ পত্রিকাটি তার প্রতিবেদনে জানিয়েছে যে, ইসরাইলের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় মনে করছে যদি নাইজারের সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ বাজুম আগামী ২৭ ডিসেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিজয়ী হতে পারেন তাহলে ইসরাইল এবং নাইজারের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা হবে।

ছড়িয়ে দিনঃ
  • 75
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    75
    Shares