Trial Run

হেফাজতিরা ইসলামকে কলুষিত করছে : মামুনুল হক প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী

রবিবার (৪ এপ্রিল) জাতীয় সংসদে দেওয়া সমাপনী বক্তব্যে সোনারগাঁওয়ের রয়েল রিসোর্টে হেফাজতে ইসলামীর যুগ্ম মহাসচিব যে মহিলাকে নিয়ে অবস্থান করেছিল সে পার্লারে কাজ করে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসময়  হেফাজতিরা ইসলামকে কলুষিত করছে বলে মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী।

এরা ইসলাম ধর্মের নামে কলঙ্ক: প্রধানমন্ত্রী

সমাপনী বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী মামুনুল হকের প্রসঙ্গে বলেন, এদের চরিত্র নিয়ে কিছু বলতে চাই না। গতকালই আপনারা দেখেছেন। ধর্ম ও পবিত্রতার কথা বলে অপবিত্র কাজ করে ধরা পড়ে এরা। সোনারগাঁয়ে একটি রিসোর্টে হেফাজতের যুগ্ম সম্পাদক ধরা পড়লো। তা ঢাকার জন্য নানা রকম চেষ্টা করেছে তারা। পার্লারে কাজ করা এক মহিলাকে বউ হিসেবে পরিচয় দেয়। আবার নিজের বউয়ের কাছে বলে যে, অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে আমি এটা বলে ফেলেছি।

যারা ইসলাম ধর্মে বিশ্বাস করে, এ রকম মিথ্যা কথা তারা বলতে পারে? অসত্য কথা বলতে পারে? যারা মিথ্যা বলতে পারে, তারা কী ধর্ম পালন করবে? মানুষকে কী ধর্ম শেখাবে?

হেফাজতের অন্যদের প্রতি উদ্দেশ্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, হেফাজতের সদস্যদের অনুরোধ করবো যেন তারা বুঝে নেন যে, কোন নেতৃত্ব তাদের। জ্বালাও-পোড়াও করে তিনি বিনোদন করতে গেলেন একটি রিসোর্টে, একজন সুন্দরী মহিলা নিয়ে। এরা ইসলাম ধর্মের নামে কলঙ্ক। ইসলাম ধর্মকে তারা ছোট করছে। কিছু লোকের জন্য আজকে এই ধর্মটায় জঙ্গির নাম, সন্ত্রাসের নাম। আর এখন যে চরিত্র দেখালো, সেখানে দুশ্চরিত্রের নাম। সব নাম জুড়ে দিচ্ছে এরা।

হেফাজতিরা ইসলামকে কলুষিত করছে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ধর্ম হচ্ছে ইসলাম। যে ইসলাম সব থেকে সহনশীলতা শিখিয়েছে। শান্তির কথা বলেছে। সাধারণ মানুষের কথা বলেছে। মানুষের উন্নয়নের কথা বলেছে। সেই পবিত্র ধর্মকে এরা কলুষিত করে দিচ্ছে। এরা ধর্মের নামে ব্যবসা শুরু করে দিয়েছে। এই বিনোদনের এত অর্থ কোত্থেকে আসে। এটার বিচার করবে দেশবাসী। আইন আইনের গতিতে চলবে।

ওই নারী মামুনুল হকের স্ত্রী নন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

রবিবার জাতীয় সংসদে দেওয়া বিবৃতিতে নারায়ণগঞ্জের একটি রিসোর্টে নারীসহ হেফাজত নেতা মামুনুল হকের অবস্থান প্রসঙ্গে মন্তব্য করতে গিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন জানান, ওই নারী তার স্ত্রী নন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘সোনারগাঁও উপজেলার একটি বেসরকারি হোটেলে হেফাজতের কেন্দ্রীয় নেতা মামুনুল হক একজন নারীসহ অবস্থান করছিলেন। ওই নারী কে তা নিজের মুখে স্বীকার করেছেন। এ বিষয়ে আরও জেনে সবাইকে জানাবো।’

মন্ত্রী বলেন, ‘ওই ঘটনার পর দেখলাম ওই রিসোর্টের ওপর আক্রমণ হলো। কেন এই আক্রমণ, আমার জানা নেই। সেখানে বিদেশি কয়েকজন নাগরিকও ছিলেন। পুলিশ ও বিজিবি গিয়ে তাদের রক্ষা করেছেন।’

হেফাজতের তাণ্ডব প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘হঠাৎ কেন এমন তাণ্ডব? নিশ্চয়ই কোনও উদ্দেশ্য আছে। আমরা তদন্ত করে দেখছি। যারাই তাণ্ডব চালিয়ে থাকুক, আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা নিয়েছি।’

এসডব্লিউ/এসএস/১৫১০

ছড়িয়ে দিনঃ
  • 11
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    11
    Shares

আপনার মতামত জানানঃ