Trial Run

তদন্তের মুখে আলিবাবা এবং টেক জায়ান্টরা

ই-কমার্স ও টেক জায়ান্ট আলিবাবার বিরুদ্ধে একচেটিয়া আচরণের অভিযোগে তদন্ত শুরু করেছে চীন সরকার। চীনের স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ফর মার্কেট রেগুলেসন (এসএএমআর) বৃহস্পতিবার দেয়া এক বিবৃতিতে এই সংবাদ নিশ্চিত করেছে। আগামী দিনে আলিবাবার সহযোগী প্রতিষ্ঠান অ্যান্ট গ্রুপের সাথেও বৈঠক করবে আর্থিক নিয়ন্ত্রন সংস্থার কর্মকর্তারা।

ই-কমার্স সেক্টরে প্রতিযোগিতা-বিরোধী মনোভাব দমানোর উদ্দেশ্য নিয়েই এই অভিযান শুরু করেছে বলে জানিয়েছে দেশটির সরকার। আলিবাবা বাজারে তাদের দরকষাকষির শক্ত অবস্থান এবং প্রভাবকে কাজে লাগিয়ে একচেটিয়া আধিপত্য বিস্তার করছে বলে অভিযোগ এসেছে। এতে প্রতিযোগী প্রতিষ্ঠানগুলো বাজারে টিকে থাকতে সমস্যার মুখোমুখি হতে হচ্ছে। আলিবাবার কাছে বিক্রেতাদের একটি বিশেষ চুক্তি করতে হত যার ফলে বিক্রেতারা প্রতিদ্বন্দ্বী প্রতিষ্ঠানে কোন অফার দিতে পারতেন না। আলিবাবার এই আচরণকে “দুটি থেকে একটি বেছে নেয়া” বলে আখ্যায়িত করে আগেই সতর্ক করেছিলো নিয়ন্ত্রক সংস্থা। সাম্প্রতিক সময়ে আলিবাবা ও টেনসেন্টের মতো চীনা টেক জায়ান্টদের ব্যাপকভাবে সরকারি নজরদারির মধ্যে রাখা হয়েছে।

আলিবাবা গ্রুপ হোল্ডিং লিমিটেডের সহপ্রতিষ্ঠাতা জ্যাক মা অক্টোবরে সাংহাইয়ে এক কনফারেন্সে বলেছিলেন, “এটি অর্থনৈতিক বিকাশের পর্যায়ে একটি জটিল মুহূর্ত।“ পরের ২০ মিনিট তিনি সরকারের আইনকানুন নিয়ে সমালোচনা করেছিলেন। যেখানে হাস্যরসাত্মক ভঙ্গিতে তিনি বলেছিলেন, “চীনে কোনো নিয়মতান্ত্রিক অর্থনৈতিক ঝুঁকি নেই, কারণ চীনে কোনো নিয়মই নেই।“ এরপর থেকে চীনের প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর ব্যাপারে নড়েচড়ে বসে সরকার।

সেপ্টেম্বর থেকে চীন সরকার একটি সমন্বিত কঠোর নিয়ন্ত্রক ব্যবস্থা চালু করে। গত মাসে আটকে দিয়েছিল অ্যান্ট গ্রুপের তিন হাজার সাতশ কোটি ডলারের আইপিও চীন সরকার। ফলশ্রুতিতে আলিবাবা গ্রুপের বাজারমূল্য কমেছিল ১৭ শতাংশ তথা ১৪০ বিলিয়ন ডলার।

রয়টার্স জানিয়েছে, “হংকংয়ে আলিবাবার শেয়ার মূল্য ইতিমধ্যেই কমেছে নয় শতাংশ। অন্যদিকে, আলিবাবা প্রতিদ্বন্দ্বী মেইটুয়ান এবং জেডি ডটকমের শেয়ার মূল্য কমেছে ২ শতাংশেরও বেশি।“ ফলে বড়সড় ঝুঁকির মুখে পড়েছে আলিবাবা। এরমধ্যে নিজেকে আড়াল করে ফেলা জ্যাক মা’কে দেশে থাকার পরামর্শ দিয়েছে তদারকি প্রতিষ্ঠান।

চিনের কমিউনিস্ট পার্টির সংবাদমাধ্যম পিপল’স ডেইলি লিখেছিল, “যদি একচেটিয়া আচরণ সহ্য করা হয়, এবং প্রতিষ্ঠানকে অসংযত হয়ে এগিয়ে যাওয়ার অনুমোদন দেওয়া হয়, তাহলে শিল্প মোটেই উন্নত হবে না।“

অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির চীনা রাজনীতিবিষয়ক বিশেষজ্ঞ রানা মিত্তর বলেন, পার্টি (কমিউনিস্ট) এটা স্পষ্ট করার চেষ্টা করছে যে মা পার্টির চেয়ে বড় নন।“

এসডব্লিউ/কেএফ/২০১০

ছড়িয়ে দিনঃ
  • 6
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    6
    Shares