Trial Run

আইনপ্রয়োগের চিত্র ও গণমাধ্যম: ১০ ডিসেম্বর ২০২০

স্টেটওয়াচ রিসার্চ নেটওয়ার্ক কাজ করছে বাংলাদেশে আইনপ্রয়োগের সার্বিক চিত্র তুলে ধরার পাশাপাশি মতপ্রকাশের স্বাধীনতা সংক্রান্ত বাস্তবতা নিয়ে। এর অংশ হিসেবে স্টেটওয়াচ নিউজে আমরা প্রতিদিনকার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা ও গণমাধ্যম সংক্রান্ত খবরাখবরগুলো সংক্ষেপে তুলে ধরার উদ্যোগ নিয়েছি। প্রতিদিন নিম্নোক্ত মাধ্যমসমূহ থেকে সংবাদগুলো সংগ্রহ ও তা নথিবদ্ধ করছে আমাদের কর্মীরা: প্রথম আলো, কালের কণ্ঠ, যুগান্তর, সমকাল, নয়া দিগন্ত, ইত্তেফাক, দেশ রূপান্তর, ডেইলি স্টার, নিউ এজ, দ্য ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেস, বাংলা ট্রিবিউন, বিডিনিউজ২৪ ডটকম, আমাদের সময়, মানবজমিন। আমরা আশা করি, এই প্রতিবেদন নিয়মিত প্রকাশের মাধ্যমে জনগণের তথ্যপ্রাপ্তির অধিকার আরো শক্তিশালী হবে।

১০ ডিসেম্বর ২০২০, বৃহস্পতিবার, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত
আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও গণমাধ্যম সংক্রান্ত নির্বাচিত খবরের সার-সংক্ষেপ।

 

কিশোর রিকশাচালককে পিটিয়ে হাত ভেঙে দিল পুলিশ

যুগান্তর
বিভাগ: রাষ্ট্রীয় বাহিনী

হবিগঞ্জের বাহুবলে হাফিজুর রহমান (১৪) নামের এক কিশোর রিকশাচালককে পিটিয়ে হাত ভেঙে দিয়েছে পুলিশ। ৮ ডিসেম্বর, মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে উপজেলার ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের বাগানবাড়ি নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় লোকজন পুলিশের কবল থেকে তাকে উদ্ধার করে বাহুবল হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন। বুধবার বিকালে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। ডাক্তার জানিয়েছেন অতিরিক্ত আঘাতে তার হাত ভেঙে গেছে। মঙ্গলবার বিকালে একটি ট্রিপ আনতে সে বিশ্বরোড দিয়ে বাহুবল বাজারে যেতে থাকে। দৌলতপুরের কাছে বাগানবাড়ি এলাকায় পৌঁছলে বিশ্বরোডের চেকিং পোস্টে দায়িত্বরত পুলিশ তার রিকশা আটক করে। একপর্যায়ে সে কেন রিকশা নিয়ে বিশ্বরোডে উঠল এ নিয়ে তাকে মারধর করে।

এদিকে লোকজন হাফিজুর রহমানের ছবি ফেসবুকে ভাইরাল করে পুলিশের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছেন। তবে থানা পুলিশ, হাইওয়ে পুলিশ নাকি ট্রাফিক পুলিশ হাফিজের ওপর নির্যাতন করেছে সেটি জানা যায়নি।

বাহুবল মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ কামরুজ্জামান বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই, আমি দেখছি।

 

ঝালকাঠিতে সাংসদের মেয়ের ছবিসহ অশালীন মন্তব্য
ডিজিটাল আইনের মামলায় আওয়ামী লীগের নেতা গ্রেপ্তার

প্রথম আলো
বিভাগ: ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট

ঝালকাঠিতে মেসেঞ্জারে অশালীন মন্তব্যসহ সাংসদের এক মেয়ের ছবি ছড়ানোর ঘটনায় ডিজিটাল আইনের মামলায় জেলা আওয়ামী লীগের এক নেতাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

৯ ডিসেম্ববর, ২০২০ কে আদালতে পাঠিয়ে সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (আজ) এ নিয়ে শুনানির দিন ধার্য করেছেন আদালত। গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তি হলেন জেলা আওয়ামী লীগের আইনবিষয়ক সম্পাদক রুহুল আমিন রিজভী (৪২)। ৮ ডিসেম্বর, মঙ্গলবার শুনানি শেষে তার দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

থানা-পুলিশ জানায়, শেখ মোহাম্মদ রাব্বীর ফেসবুক আইডি ও মেসেঞ্জার থেকে শনিবার রাত ১২টা ২২ মিনিটে স্থানীয় সাংসদের মেয়ের ছবিসহ আপত্তিকর ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য প্রচার করা হয়। ইসরাত জাহান মেসেঞ্জারে তা দেখতে পান। তিনি জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আ স ম মোস্তাফিজুর রহমানকে বিষয়টি জানান। এ ঘটনায় মোস্তাফিজুর রোববার রাতে রাব্বীকে আসামি করে সদর থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন। রাত ৯টার দিকে শহরের সাধনার মোড় থেকে রাব্বীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। সোমবার দুপুরে সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে তাকে আদালতে পাঠায় পুলিশ। সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এ এইচ এম ইমরানুর রহমান মঙ্গলবার রিমান্ড শুনানির দিন ধার্য করেন। সেদিন তার দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

 

পুলিশের বাধায় শ্রমিক দলের মানববন্ধন পণ্ড

সমকাল
বিভাগ: রাষ্ট্রীয় বাহিনী

রাষ্ট্রায়ত্ত ছয়টি চিনিকল বন্ধের প্রতিবাদে পুলিশের বাধায় মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করতে পারেনি শ্রমিক দল। গতকাল বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এই কর্মসূচি পালন করার কথা ছিল বিএনপির অন্যতম এই সহযোগী সংগঠনের। অনুমতি না থাকায় পুলিশ তাদের সেখানে দাঁড়াতে দেয়নি। পুলিশের দায়িত্বরত কর্মকর্তারা জানান, অনুমতি ছাড়া কোনো মানববন্ধন কিংবা সমাবেশ করার সুযোগ নেই। শ্রমিক দল মানববন্ধন করার কোনো অনুমতি আমাদের দেখাতে পারেনি। শ্রমিক দলের নেতাকর্মীদের নিয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় দপ্তরের দায়িত্বে থাকা সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স পদযাত্রা করে বিজয়নগরে শ্রম ভবনের কাছে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে কর্মসূচি শেষ করেন। শ্রমিক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসেইন বলেন, সরকার সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে, অমানবিকভাবে রাষ্ট্রায়ত্ত চিনিকলগুলো বন্ধ করছে।

স্ত্রীর মামলায় পুলিশ কর্মকর্তা কারাগারে

যুগান্তর
বিভাগ: রাষ্ট্রীয় বাহিনী

যশোরে স্ত্রীর দায়ের করা যৌতুক মামলায় পুলিশের এক কর্মকর্তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। ৮ ডিসেম্বর, মঙ্গলবার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুদ্দীন হোসাইন এ আদেশ দেন।

আসামি আবদুস সালাম রাজবাড়ী জেলার কালুখালি উপজেলার বড় পাতুরিয়া গ্রামের লোকমান শেখের ছেলে। তিনি বরগুনা জেলা পুলিশের এএসআই  পদে কর্মরত। জানা যায়, চলতি বছরের ১০ ফেব্রুয়ারি যশোর সদর উপজেলার দেয়াড়া ইউনিয়নের এড়েন্দা গ্রামের হযরত আলীর মেয়ে রোকসানা খাতুন যশোর আদালতে মামলা করেন। মামলায় তিনি উল্লেখ করেন, ২০১৮ সালের ১০ জানুয়ারি সালামের সঙ্গে রোকসানার বিয়ে হয়। বিয়ের সময় রোকসানার পরিবার তিন লাখ টাকা মূল্যের সাত ভরি সোনার গহনা দেয়। বিয়ের পর থেকে পাঁচ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করতে থাকে। যৌতুকের টাকা না দেয়ায় রোকসানাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতে থাকে। মামলার বাদীপক্ষের আইনজীবী নুরুল ইসলাম সিদ্দিকী চুন্নু জানান, সালাম বরগুনা জেলা পুলিশের এএসআই পদে কর্মরত ছিলেন। মেয়েলি সংক্রান্ত একাধিক অভিযোগের পর তিনি বর্তমানে বরগুনা পুলিশ লাইনে ক্লোজ আছে। আদালত বাদীর অভিযোগ আমলে নিয়ে আসামির প্রতি সমন জারি করেন। মীমাংসার শর্তে জামিন নেন সালাম। কিন্তু পরে মীমাংসা না করায় মামলার ধার্য তারিখে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

 

এবার মাওলানা মামুনুল হকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

আমাদের সময়
বিভাগ: ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট

ভাস্কর্যবিরোধী বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে বৃহস্পতিবার (১০ ডিসেম্বর) ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আস সাম জগলুল হোসেনের আদালতে মামলাটি করেন বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট আবদুল মালেক।

 

Police foil Sramik Dal demo in Dhaka

The New Age
Category: Digital Security Act

The police on Wednesday morning foiled a human chain of Jatiyatabadi Sramik Dal in front of the National Press Club. The labour front of opposition Bangladesh Nationalist Party organised the demonstration, protesting at the government decision to suspend sugarcane crushing at six state-owned sugar mills. The party leaders and activists as per their pre-scheduled programme came to the press club at about 11:00am to stage their demonstration and took their position there, the organisation leaders said.

But in no time, they said, the police on-duty in the area arrived at the scene and prevented them from forming the human chain.

BNP standing committee member Gayeshwar Chandra Roy was scheduled to speak at the demonstration as the chief guest. ‘As the police foiled our demonstration, we left the spot, marched towards Bijaynagar and held a short rally near Srama Bhaban to press our demands and protesting at the police attack foiling our demonstration, which is our democratic right,’ Sramik Dal president Anwar Hossain told New Age. He demanded immediate withdrawal of the government’s decision taken on December 1 to suspend sugarcane crushing in six state-owned jute mills. Shahbagh police officer-in-charge Mamun-or-Rashid told New Age that they did not allow Sramik Dal to hold the ‘gathering’ as they had no permission from the police which was needed for doing so. Sramik Dal organised the demonstration in solidarity with the state-owned sugar mill workers and their contract growers who have been staging demonstrations in their mill areas, protesting at the government decision to suspend sugarcane crushing. The mill workers alleged that the suspension was a trick of the government to close the mills permanently.

ছড়িয়ে দিনঃ
  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    3
    Shares