Trial Run

সাঈদ খোকনের বিরুদ্ধে মামলা করবেন তাপস

ছবি : বিডিজার্নাল

ঢাকা দক্ষিণের সাবেক মেয়র সাঈদ খোকনের বিরুদ্ধে মানহানী মামলা করবেন বলে জানিয়েছেন দক্ষিণের বর্তমান মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস। আজ সোমবার (১১ জানুয়ারি) সকালে রাজধানীর মানিকনগরে খাল পরিষ্কার কার্যক্রম পরিদর্শনে গিয়ে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

তাপস বলেন, দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে সাবেক মেয়র সাঈদ খোকনের বক্তব্য মানহানিকর। তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সাঈদ খোকনের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ এনে মামলা করার পর করপোরেশনের বর্তমান মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপসের সাথে বিবাদ শুরু হয়। গত ডিসেম্বর মাসের আট তারিখে রাজধানীর ফুলবাড়িয়া সুপার মার্কেটের দোকানগুলো নকশা বহির্ভূত এমন অভিযোগে ৯১১টি দোকান উচ্ছেদ করা হয়। এই উচ্ছেদ অভিযানের নেতৃত্ব দেন বর্তমান মেয়র ফজলে নূর তাপস। কিন্তু সেই সময়ে ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করেন সাবেক মেয়র সাঈদ খোকনকে দেয়া টাকার বিনিময়ে ঐসব দোকান বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। ব্যবসায়ীরা কাগজপত্র দেখান যেখানে পাঁচটা পে অর্ডারের মাধ্যমে প্রায় ৩৫ কোটি টাকা দেয়া হয় সিটি করপোরেশনকে। ডিসেম্বরে ঐ ঘটনা বেশ চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছিল। ব্যবসায়ীরা এসব পে অর্ডার আদালতে দাখিল করলে আদালত সাঈদ খোকনের বিরুদ্ধে করা ব্যবসায়ীদের করা মামলাটি গ্রহণ করে। এরপর থেকেই সাবেক এবং বর্তমান দুই মেয়রের মধ্যে বিবাদ সামনে চলে আসে। সাঈদ খোকন একাধিকবার বিভিন্ন অনুষ্ঠানে এই সব ঘটনার জন্য বর্তমান মেয়রকে দায়ী করেন।

গতকাল শনিবার(১০ জানু) ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী ও পরিবারবর্গের ব্যানারে একটি মানববন্ধন হয়। সেই মানববন্ধনে সাঈদ খোকন আক্রমণাত্মক বক্তব্য দেন তাপসের বিরুদ্ধে।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, তাপস দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের শত শত কোটি টাকা তার নিজ মালিকানাধীন মধুমতি ব্যাংকে স্থানান্তরিত করেছেন। এছাড়া শত শত কোটি টাকা বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগ করার মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা লাভ হিসেবে গ্রহণ করছেন।

সাঈদ খোকন আরো বলেন, তাপস মেয়র হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করার পর থেকেই দুর্নীতির বিরুদ্ধে গলাবাজি করে চলেছেন। অন্যদিকে অর্থের অভাবে দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের গরিব কর্মচারীরা মাসের পর মাস বেতন পাচ্ছেন না। সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প অর্থের অভাবে বন্ধ হয়ে গেছে।

পরিদন রোববার সাঈদ খোকনের এ বক্তব্যকে তার ব্যক্তিগত অভিমত বলে মন্তব্য করেন মেয়র তাপস। এরপর আজ সাঈদ খোকনের বিরুদ্ধে মামলার কথা জানালেন তাপস।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সাবেক ও বর্তমান দুই মেয়রের বিবাদ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতা নুহ উল আলম লেনিন বলেন, এই দুইজন দায়িত্বশীল নেতা হিসেবে এবং জনপ্রতিনিধি হিসেবে তাদের যদি কোন বিষয়ে দ্বিমত থাকে, ভিন্নমত থাকে সেটা তারা পারস্পারিক আলোচনার মধ্যে দিয়ে এটার সমাধান করতে পারেন। অথবা পার্টির উচ্চতর ফোরামে উত্থাপন করতে পারেন।

দলের মধ্যে এনিয়ে কোন অস্বস্তি আছে কিনা এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, “যেহেতু তাদের বেশ কিছু বিকল্প আছে, প্রকাশ্যে এই বিতর্কটা খুব শোভন না। পার্টির ডিসিপ্লিন মানতে হলে পার্টির অভ্যন্তরীণ বিষয় বাইরে যাবে না।”

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেছেন, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) বর্তমান মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস ও সাবেক মেয়র সাঈদ খোকন যেসব বক্তব্য দিচ্ছেন, তা এই দুই ব্যক্তির (তাপস ও খোকন) ব্যক্তিগত বক্তব্য। এখানে দলের কোনো কিছু নেই।

এদিকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সব পর্যায়ের পদ থেকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) সাবেক মেয়র সাঈদ খোকনের পদত্যাগ দাবি করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আওয়ামীপন্থী আইনজীবীরা। এ সময় সাঈদ খোকনের বিরুদ্ধে আইনজীবীরা স্লোগান দিতে থাকেন।

এসডাব্লিউ/এমএন/কেএইচ/১২৪০

ছড়িয়ে দিনঃ
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1
    Share