Trial Run

ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাল্টানোর চেষ্টা ছাত্রলীগ নেতার

খুলনা মহানগরীর আলোচিত ব্যবসায়ী মো. সাকের হোসেন হত্যা মামলার ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাল্টানোর চেষ্টা করে ফেঁসে গেছেন খুলনা জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সুরজিত মন্ডল (২৫)। ইতিমধ্যে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) তাকে গ্রেপ্তার করেছে। বর্তমানে তিনি খুলনা জেলা কারাগারে রয়েছেন।

এদিকে সুরজিত মন্ডলকে দল থেকেও বহিষ্কার করা হয়েছে। গত শনিবার খুলনা জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মো. পারভেজ হাওলাদার ও সাধারণ সম্পাদক মো. ইমরান হোসেন স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে তাকে বহিষ্কারের কথা জানানো হয়। সুরজিত বটিয়াঘাটা উপজেলার তেঁতুলতলা এলাকার গোলক মন্ডলের ছেলে। দলীয় একটি সূত্র জানায়, খুলনা মহানগরীর আহসান আহমেদ রোডের বাসিন্দা ব্যবসায়ী মো. হোসেন সাকের হত্যা মামলার ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পরিবর্তনের জন্য খুলনা জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সুরজিত মন্ডল সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে মোটা অঙ্কের আর্থিক লেনদেন করেন। সেই অভিযোগে পিবিআই গত ২৭ সেপ্টেম্বর তাকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করে। আদালতে সুরজিত ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

সাকের হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই খুলনার পরিদর্শক একেএম মাহফুজুল হক বলেন, ব্যবসায়ী মো. হোসেন সাকের হত্যাকান্ডের পর তার ময়নাতদন্ত রিপোর্ট আসামিদের পক্ষে নিতে মিডিয়া হিসেবে কাজ করেছেন সুরজিত মন্ডল। এ বিষয়ে তথ্যপ্রমাণ হাতে পাওয়ার পরই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ বিষয়ে তিনি আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিও দিয়েছেন।

এদিকে দল থেকে বহিষ্কারের বিষয়টি নিশ্চিত করে খুলনা জেলা ছাত্রলীগের উপদপ্তর সম্পাদক মফিজুর রহমান মুন্না বলেন, সংগঠনবহির্ভূত নানা রকমের কর্মকান্ডে লিপ্ত থাকার দায়ে তাকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

 

ছড়িয়ে দিনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •