Trial Run

হেলিকপ্টারে চড়ে সালিশ করতে এসে জনতার তোপের মুখে আসক

হেলিকপ্টারে চড়ে চুয়াডাঙ্গায় সালিশ করতে গিয়ে হাস্যরসের জন্ম দিয়েছেন ঢাকার আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তারা। বিষয় হচ্ছে কিছুদিন আগে চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর উপজেলায় জমিজমা নিয়ে বাবা ও তিন ছেলের মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়। পরে স্থানীয়দের মধ্যস্থায় সালিশ বৈঠকে তা মিটে যায়। এরপরও একই ইস্যুতে ঢাকা থেকে হেলিকপ্টারে করে সালিশ করতে এসে স্থানীয়দের তোপের মুখে পড়েন আসক ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তারা। পরে পুলিশের সহায়তায় দ্রুত ফিরে যেতে বাধ্য হন তারা। গত শনিবার (২ জানুয়ারি) দুপুর ১টার দিকে চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর উপজেলার আন্দুলবাড়িয়া বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে,  জীবননগর উপজেলার আন্দুলবাড়িয়া বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আব্দুল লতিফের সঙ্গে জমি সংক্রান্ত বিষয়ে তার তিন ছেলের মতবিরোধ দেখা দেয়। স্থানীয়ভাবে বিষয়টি আপস হলেও এর কিছু দিন পর আব্দুল লতিফের ছেলে মোস্তফা তাজওয়ার আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) ফাউন্ডেশনের প্রধান কার্যালয়ে তার বাবার বিরুদ্ধে একটা লিখিত অভিযোগ করেন। বিষয়টি সালিশ করতে আইন সহায়তা কেন্দ্রের বিভাগীয় প্রধান লোকমান হোসেনসহ তিনজন হেলিকাপ্টার যোগে ঢাকা থেকে ও সড়ক পথে আসে কেন্দ্রের আরেকটি দল।

এর পরই তারা সালিশে বসলে তোপের মুখে পড়েন আইন সহায়তা কেন্দ্রের বিভাগীয় প্রধান লোকমান হোসেনসহ অন্যরা।  সাংবাদিকদের প্রশ্নে কিছুটা বেসামাল হয়ে পড়েন প্রতিনিধিদল। এ বিষয়ে জীবননগর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল ইসলাম বলেন, এক পর্যায়ে স্থানীয় লোকজন আইন সহায়তা কেন্দ্রের সদস্যদেরকে মারতে উদ্যত হন। এ সময় জীবননগর থানা পুলিশের সদস্যরা তাদের শান্ত করার চেষ্টা করেন। এক পর্যায়ে বিকেল সাড়ে ৪ টার দিকে আইন সহায়তা কেন্দ্রের তিন কর্মকর্তা পুলিশের সহায়তা নিয়ে হেলিকপ্টারে চড়ে ঢাকার উদ্দেশে চলে যান। পরে আইন সহায়তা কেন্দ্রের বাকি সদস্যরা মাইক্রোবাসযোগে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেন।

এসডাব্লিউ/এমএন/এমআর/ ১৪৩৩

ছড়িয়ে দিনঃ
  • 93
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    93
    Shares