Trial Run

আইনপ্রয়োগের চিত্র ও গণমাধ্যম: ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১

স্টেটওয়াচ রিসার্চ নেটওয়ার্ক কাজ করছে বাংলাদেশে আইনপ্রয়োগের সার্বিক চিত্র তুলে ধরার পাশাপাশি মতপ্রকাশের স্বাধীনতা সংক্রান্ত বাস্তবতা নিয়ে। এর অংশ হিসেবে স্টেটওয়াচ নিউজে আমরা প্রতিদিনকার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা ও গণমাধ্যম সংক্রান্ত খবরাখবরগুলো সংক্ষেপে তুলে ধরার উদ্যোগ নিয়েছি। প্রতিদিন নিম্নোক্ত মাধ্যমসমূহ থেকে সংবাদগুলো সংগ্রহ ও তা নথিবদ্ধ করছে আমাদের কর্মীরা: প্রথম আলো, কালের কণ্ঠ, যুগান্তর, সমকাল, নয়া দিগন্ত, ইত্তেফাক, দেশ রূপান্তর, ডেইলি স্টার, নিউ এজ, দ্য ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেস, বাংলা ট্রিবিউন, বিডিনিউজ২৪ ডটকম, আমাদের সময়, মানবজমিন। আমরা আশা করি, এই প্রতিবেদন নিয়মিত প্রকাশের মাধ্যমে জনগণের তথ্যপ্রাপ্তির অধিকার আরো শক্তিশালী হবে।

৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১ বৃহস্পতিবার, ২০ মাঘ ১৪২৭, পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত
আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও গণমাধ্যম সংক্রান্ত নির্বাচিত খবরের সার-সংক্ষেপ

 

চলচ্চিত্র দেখে পুলিশ সম্পর্কে বিরূপ ধারণা যেন না হয়: ডিএমপি কমিশনার

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
বিভাগ: রাষ্ট্রীয় বাহিনী

চলচ্চিত্র দেখে মানুষের মনে যেন পুলিশ সম্পর্কে বিরূপ ধারণার সৃষ্টি না হয়, সে বিষয়টি মাথায় রাখতে নির্মাতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার মুহা. শফিকুল ইসলাম। চলচ্চিত্রে পুলিশের কার্যক্রমকে ‘শৈল্পিকভাবে’ চিত্রায়িত করার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

বুধবার ঢাকা মহানগর পুলিশ সদরদপ্তরে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক, পরিচালক ও শিল্পী গোষ্ঠীর নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় একথা বলেন শফিকুল ইসলাম।

চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টদের শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি বলেন, “আপনারা সব সময় পুলিশের বাস্তবসম্মত কাজের চিত্র দর্শকদের কাছে সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তুলবেন। সমাজ পরিবর্তনে পুলিশ যে ভূমিকা রাখছে, তা চলচ্চিত্রে চিত্রায়নের মাধ্যমে দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে হবে আপনাদের। ঢাকার পুলিশ কমিশনার বলেন, “স্বাধীনতা যুদ্ধে পুলিশের অনেক সদস্য দেশপ্রেমের টানে শাহাদাত বরণ করেছেন। পুলিশের এই আত্মত্যাগের চিত্র চলচ্চিত্রে উপস্থাপন করা হয় না, যার ফলে বিষয়টি জনগণের কাছে সঠিকভাবে পৌঁছায়নি। এই বিষয়গুলো চলচ্চিত্রের মাধ্যমে জনগণের কাছে তুলে ধরুন। নবাব এলএলবি’র ভাইরাল ভিডিও সম্পর্কে তিনি বলেন, ভিডিওতে পুলিশের কার্যক্রমকে যেভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে তা ‘বাস্তবসম্মত নয়’। ওই ভিডিওচিত্রে পুলিশের কার্যক্রম দেখলে থানায় পুলিশের কাছে সহায়তার জন্য যেতে নিরুৎসাহিত হবেন নারীরা। শফিকুল ইসলাম বলেন, প্রতিটি থানায় নির্যাতনের শিকার নারীদের জন্য নারী সহায়তা ডেস্ক রয়েছে। সেখানে ২৪ ঘণ্টা পুলিশের নারী সদস্যরা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।

 

সাংবাদিক সাইফুল ইসলামকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়ায় ডিআরইউ ক্র্যাবের উদ্বেগ

ইত্তেফাক
বিভাগ: গণমাধ্যম

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি’র (ডিআরইউ) সাবেক সভাপতি, বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশনের (ক্র্যাব) সদস্য ও বৈশাখী টিভির প্রধান বার্তা সম্পাদক সাইফুল ইসলাম এবং বৈশাখী টেলিভিশনের স্টাফ রিপোর্টার কাজী ফরিদকে কাফনের কাপড় পাঠিয়ে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়ার তীব্র নিন্দা ও উদ্বেগ জানিয়েছে ডিআরইউ ও ক্র্যাব।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের দুর্নীতি, অনিয়ম বিষয়ে ৫ পর্বের অনুসন্ধানি প্রতিবেদন প্রচার করায় এই হুমকি দিয়েছে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় সংশ্লিষ্ট দুর্নীতিবাজ অসাধু চক্রের প্রত্যক্ষ ইন্ধনে এই ধরনে হুমকি দেওয়ার অপচেষ্টা করা হয়েছে বলে ডিআরইউ ও ক্র্যাব নেতৃবৃন্দ মনে করেন। ইতিমধ্যে বিষয়টি নিয়ে বনানী থানায় গত ১ ফেব্রুয়ারি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে; যার নম্বর ৬২।

ডিআরইউ ও ক্র্যাব নেতৃবৃন্দ এক বিবৃতিতে বলেন, আমরা জানতে চাই কারা সেই প্রভাবশালী চক্র? দুর্নীতিবাজ চক্রের এ ধরনের হুমকি সাংবাদিক সমাজ স্বাভাবিকভাবে মেনে নিবে এমনটা ভাবার কোন কারণ নেই।

 

বছরেও আলোর মুখ দেখেনি সাংবাদিক শিমুল হত্যা মামলা

জাগো নিউজ
বিভাগ: গণমাধ্যম

২০১৭ সালের ২ ফেব্রুয়ারি সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের সময় গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন সাংবাদিক আব্দুল হাকিম শিমুল। চার বছর পার হলেও এখনো আলোর মুখ দেখেনি মামলাটি। স্থবির হয়ে রয়েছে আইনি জালে। নিহতের স্বজনেরা জানান, তারা এখন ক্লান্ত। হত্যার বিচারটি দেখে যেতে চান তারা। তবে সরকার পক্ষের আইনজীবী জানিয়েছেন, উচ্চ আদালতে একটি রুল নিষ্পত্তি না হওয়ার কারণেই মামলার কার্যক্রম এখন স্থগিত রয়েছে। ২০১৭ সালের ২ ফেব্রুয়ারি শাহজাদপুর আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের সময় গুলির শব্দে আতঙ্কিত হয়ে ওঠে পুরো পৌর এলাকা। সংঘর্ষের মাঝে গুলিতে আহত হন সাংবাদিক আব্দুল হাকিম শিমুলসহ আরো কয়েকজন। আহতদের বগুড়া জিয়াউর রহমার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে সাংবাদিক শিমুলের অবস্থার অবনতি হলে পরের দিন ঢাকায় নেয়ার পথে মারা যান তিনি। এ ঘটনায় শিমুলের স্ত্রী বাদী হয়ে মেয়র মিরু ও তার সহোদর মিন্টু এবং উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা নাছিরসহ জ্ঞাত ১৮ এবং অজ্ঞাত পরিচয় আরও প্রায় ২২ জনসহ ৪০ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন।

কিন্তু চার বছরেও এই হত্যা মামলার নিষ্পত্তি না হওয়ায় এখনো আতঙ্কে আর উৎকণ্ঠায় দিন কাটে স্থানীয় সাংবাদিকদের। সহকর্মী হত্যার বিচার দেখতে চান তারা।

 

সাংবাদিকদের সুযোগ দিলে তো তথ্য প্রকাশ করবেই

 জাগো নিউজ
বিভাগ: গণমাধ্যম

সাংবাদিকের অনুসন্ধিৎসু মন, তারা তথ্য তো খুঁজবেই, এতে অপরাধের কিছু দেখছি না বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট। হাইকোর্ট বলেন, ‘সাংবাদিকদের সুযোগ করে দিলে সে তো তথ্য প্রকাশ করবেই।’

বুধবার (৩ ফেব্রুয়ারি) ফেনীর নুসরাত জাহান রাফির ভিডিও প্রকাশ হওয়ায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় সাজাপ্রাপ্ত সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের জামিন আবেদনের শুনানিতে বিচারপতি হাবিবুল গনি ও বিচারপতি মো. রিয়াজ উদ্দিন খানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এমন মন্তব্য করেন। এদিন আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এমডি রেজাউল করিম। ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মুরাদ রেজা।

এরপর ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় দণ্ডিত সোনাগাজী থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেনের জামিন আবেদন তিন মাসের জন্য মুলতবি (স্ট্যান্ডওভার) করে আদেশ দেন হাইকোর্ট।

শুনানিতে মোয়াজ্জেম হোসেনের  আইনজীবী মুরাদ রেজা বলেন, ‘মাই লর্ড, ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন ওই ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করেননি। তার মোবাইলে করা ওই ভিডিওটি একজন সাংবাদিক ওসির মোবাইল থেকে নিয়ে প্রকাশ করেছেন। তাই এক্ষেত্রে ওসির কোনো অপরাধ নেই। যদি অপরাধ হয় তাহলে সেটা ওই সাংবাদিকের। কারণ তিনি ভিডিওটি প্রকাশ করেছেন।’

এসময় আদালত আইনজীবীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘সাংবাদিকের অনুসন্ধিৎসু মন, তথ্য তো খুঁজবেই, এতে অপরাধের কিছু দেখছি না। সাংবাদিকদের সুযোগ করে দিলে সে তো তথ্য প্রকাশ করবেই।

 

প্রধানমন্ত্রী যোগাযোগ মন্ত্রীর ছবি বিকৃতির অভিযোগে যুবক আটক

বাংলা ট্রিবিউন
বিভাগ: ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন

 দিনাজপুরের বিরামপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছবি বিকৃত ও ব্যঙ্গ করে ফেসবুকে শেয়ার করার অভিযোগে মনির খান (২৩) নামের এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। বুধবার (৩ ফেব্রুয়ারি) রাতে বিরামপুর উপজেলার কাটলা বাজার থেকে তাকে আটক করা হয়। আটক মনির খান বিরামপুর উপজেলার রামচন্দ্রপুর গ্রামের শহিদুল ইসামের ছেলে।

মামলার বাদী ও হাকিমপুরের খট্টামাধবপাড়া ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফরিদুল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, গত ১ ফেব্রুয়ারি ফেসবুক চালাতে গিয়ে হঠাৎ করে তিনি দেখতে পান (MD Monir Khan) নামে একটি ফেসবুক আইডিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছবি বিকৃত করে এবং ব্যঙ্গাত্বকভাবে পোস্ট করা হয়েছে। পরে তিনি বিষয়টি নিয়ে খট্টামাধবপাড়া ইউনিয়নের নেতাকর্মীদের সঙ্গে পরামর্শ করে রাতে বিরামপুর থানায় এজাহার দায়ের করেন।

বিরামপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ১ ফেব্রুয়ারি মনির খান তার নিজ ফেসবুক আইডি থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সড়ক ও সেতু পরিবহন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছবি বিকৃত ও ব্যঙ্গ করে ফেসবুকে শেয়ার করে। এ বিষয়ে ৩ ফেব্রয়ারি রাতে হাকিমপুরের খট্টামাধবপাড়া ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফরিদুল ইসলাম বাদী হয়ে মনির খানের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় বুধবার রাতেই অভিযান চালিয়ে মনিরকে উপজেলার কাটলা বাজার এলাকা থেকে আটক করা হয়। বৃহস্পতিবার সকালে তাকে দিনাজপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে।

ছড়িয়ে দিনঃ
  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    2
    Shares

আপনার মতামত জানানঃ