Trial Run

ভারতের প্রতিটি জেলায় অক্সিজেন কারখানা গড়ে তোলা হবে

চিকিৎসা সেবার জন্য ভারতের প্রতিটি জেলায় অক্সিজেন কারখানা তৈরির ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। করোনা পরিস্থিতিতে ভারতে যখন মৃতদের মিছিল দেখছে বিশ্ববাসী ঠিক ওই সময় এ ঘোষণা দেন তিনি।

আজ একজ টুইটবার্তায় নরেন্দ্র মোদি বলেন, “পর্যাপ্ত অক্সিজেন নিশ্চিত করতে প্রতিটি জেলায় অক্সিজেন উৎপাদন কেন্দ্র তৈরি করা হবে। এই গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তের ফলে দেশের হাসপাতালগুলোতে অক্সিজেনের জোগান বাড়বে এবং দেশের মানুষ উপকৃত হবেন”।

মোদি আরও বলেন, পিএম কেয়ার্স ফান্ডের টাকা থেকে জেলায় জেলায় অক্সিজেন কারখানা গড়ে তোলা হবে। বিভিন্ন জেলার সরকারি হাসপাতালগুলিতে হঠাৎ করে যাতে অক্সিজেন সরবরাহ ব্যাহত না হয় এবং কোভিডে আক্রান্ত ও অন্যান্য রোগীর সহায়তার জন্য এই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এই ব্যবস্থাটিকে দীর্ঘায়িত করা হবে।

ভারতে রোববার দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লক্ষ ৪৯ হাজার ৬৯১, যা এ যাবৎ সর্বাধিক। এখনও পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ৬৯ লক্ষ ৬০ হাজার ১৭২। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৭৬৭ জনের, যা এখনও পর্যম্ত সবচেয়ে বেশি। এখনও পর্যন্ত ভারতে করোনা আক্রান্ত হয়ে মোট ১ লক্ষ ৯২ হাজার ৩১১ জন মৃত্যুবরণ করেছেন।

রাজধানী দিল্লিসহ দেশটির বহু রাজ্যে বর্তমানে অক্সিজেনের জন্য হাহাকার চলছে। হাসপাতালগুলোতে অক্সিজেনের অভাবে অকাতরে প্রাণ হারাচ্ছে করোনায় আক্রান্তরা।

ইতিমধ্যে দেশের ৫৫১টি সরকারি হাসপাতালে অক্সিজেন উৎপাদনের জন্য পরিকাঠামো গড়ে তোলা হয়েছে। এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রীর অফিস থেকে ৭০০-র বেশি অক্সিজেন উৎপাদক সংস্থাকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। বাকি সব জেলায় অক্সিজেন তৈরির জন্য দ্রুত অনুমোদন দেওয়া হবে বলে প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে জানানো হয়েছে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রীর দফতরের এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, এর আগে পিএম কেয়ার্স ফান্ডের ২০১.৫৮ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে দেশ জুড়ে চিকিৎসার প্রয়োজনে ব্যবহৃত ১৬২টি অক্সিজেন উৎপাদক কেন্দ্র গড়ে তুলতে। এ বার প্রতিটি জেলায় অক্সিজেন কারখানা তৈরির লক্ষ্য নেওয়া হয়েছে।

এসডব্লিউ/নসদ/২০২০


State watch সকল পাঠকদের জন্য উন্মুক্ত সংবাদ মাধ্যম, যেটি পাঠকদের অর্থায়নে পরিচালিত হয়। যে কোন পরিমাণের সহযোগীতা, সেটি ছোট বা বড় হোক, আপনাদের প্রতিটি সহযোগিতা আমাদের নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে ভবিষ্যতে বড় অবদান রাখতে পারে। তাই State watch-কে সহযোগিতার অনুরোধ জানাচ্ছি।

ছড়িয়ে দিনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আপনার মতামত জানানঃ