Trial Run

আইনপ্রয়োগের চিত্র ও গণমাধ্যম: ২৪ ডিসেম্বর ২০২০

স্টেটওয়াচ রিসার্চ নেটওয়ার্ক কাজ করছে বাংলাদেশে আইনপ্রয়োগের সার্বিক চিত্র তুলে ধরার পাশাপাশি মতপ্রকাশের স্বাধীনতা সংক্রান্ত বাস্তবতা নিয়ে। এর অংশ হিসেবে স্টেটওয়াচ নিউজে আমরা প্রতিদিনকার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা ও গণমাধ্যম সংক্রান্ত খবরাখবরগুলো সংক্ষেপে তুলে ধরার উদ্যোগ নিয়েছি। প্রতিদিন নিম্নোক্ত মাধ্যমসমূহ থেকে সংবাদগুলো সংগ্রহ ও তা নথিবদ্ধ করছে আমাদের কর্মীরা: প্রথম আলো, কালের কণ্ঠ, যুগান্তর, সমকাল, নয়া দিগন্ত, ইত্তেফাক, দেশ রূপান্তর, ডেইলি স্টার, নিউ এজ, দ্য ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেস, বাংলা ট্রিবিউন, বিডিনিউজ২৪ ডটকম, আমাদের সময়, মানবজমিন। আমরা আশা করি, এই প্রতিবেদন নিয়মিত প্রকাশের মাধ্যমে জনগণের তথ্যপ্রাপ্তির অধিকার আরো শক্তিশালী হবে।

২৪ ডিসেম্বর ২০২০, বৃহস্পতিবার, ৯ পৌষ ১৪২৭, পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত
আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও গণমাধ্যম সংক্রান্ত নির্বাচিত খবরের সার-সংক্ষেপ।

পিলখানা হত্যা মামলা
খালাসপ্রাপ্ত ৭৫ জনসহ ৮৩ আসামির ক্ষেত্রে আপিল করেছে রাষ্ট্রপক্ষ

প্রথম আলো
বিভাগ: রাষ্ট্রীয় বাহিনী

পিলখানায় বিডিআর বিদ্রোহের ঘটনায় করা হত্যা মামলায় হাইকোর্টে খালাস পাওয়া ৭৫ জন এবং সাজা কমে যাবজ্জীবনপ্রাপ্ত ৮ আসামি মিলিয়ে ৮৩ জনের ক্ষেত্রে লিভ টু আপিল (আপিলের অনুমতি চেয়ে আবেদন) করেছে রাষ্ট্রপক্ষ। বিচারিক আদালতে মৃত্যুদণ্ডাদেশের পর হাইকোর্টে খালাস পাওয়া চারজনের ক্ষেত্রে ১৭ ডিসেম্বর আপিল বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখায় একটি লিভ টু আপিল করে রাষ্ট্রপক্ষ। এরপর অপর ৭৯ জনের ক্ষেত্রে ২২ ডিসেম্বর পৃথক ১৯টি লিভ টু আপিল করে রাষ্ট্রপক্ষ। তিন বিচারপতির সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের বিশেষ বেঞ্চ ২০১৭ সালের ২৬ ও ২৭ নভেম্বর রায় ঘোষণা করেন। হাইকোর্টের রায়ে ১৩৯ আসামির মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখা হয়। যাবজ্জীবন সাজা দেওয়া হয় ১৮৫ জনকে এবং বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেওয়া হয় ২২৮ জনকে। হাইকোর্টের পূর্ণাঙ্গ রায় গত ৮ জানুয়ারি প্রকাশিত হয়।

গতকাল  বুধবার ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ প্রথম আলোকে বলেন, পিলখানা হত্যা মামলায় ৮৩ জনের বিষয়ে হাইকোর্টের দেওয়া রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ পৃথক ২০টি লিভ টু আপিল করেছে। হাইকোর্টের রায়ে তারা খালাস পেয়েছিলেন এবং সাজা কমেছিল।

 

পুলিশ সদস্যের বাসায় প্রতিবন্ধীর ঝুলন্ত লাশ

কালের কন্ঠ
বিভাগ: রাষ্ট্রীয় বাহিনী

রংপুরে শারীরিক প্রতিবন্ধী এক রিকশাচালককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে এক পুলিশ কনস্টেবলের বিরুদ্ধে। তাঁর বাসা থেকেই ওই ব্যক্তির ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। পরে এলাকাবাসীর বিক্ষোভের মুখে পুলিশ সদস্য ও তাঁর স্ত্রীকে আটক করা হয়। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় নগরের আশরতপুর কোর্টপাড়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। নিহত ব্যক্তির নাম নাজমুল ইসলাম (৩০)। তাঁর বাড়ি লালমনিরহাটের মুস্তফি এলাকায়। নাজমুল পরিবারসহ আশরতপুর ঈদগাহপাড়ায় ভাড়া বাসায় থাকতেন। পায়ে সমস্যার কারণে তিনি ব্যাটারিচালিত রিকশা চালাতেন। নাজমুল ব্যাটারিচালিত রিকশাটি ভাড়া নিয়েছিলেন পুলিশ কনস্টেবল হাসান আলীর কাছ থেকে। হাসান রংপুর পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারে কর্মরত। তাঁর বাসা আশরতপুর কোর্টপাড়ায়। পুলিশ হাসান ও তাঁর স্ত্রী সাথী বেগমকে আটক করেছে।

রংপুর নগরের তাজহাট থানার ওসি আকতারুজ্জামান সাংবাদিকদের জানান, পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। গতকাল রাতে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছিল জানিয়ে তিনি বলেন, তদন্ত করে অভিযোগ প্রমাণিত হলে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

মাদকাসক্ত ৪ পুলিশ চাকরিচ্যুত, কারাগারে ৫

বাংলা ট্রিবিউন
বিভাগ: রাষ্ট্রীয় বাহিনী

বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের (বিএমপি) মাদকাসক্ত সদস্যদের কপাল পুড়ছে। ইতোমধ্যে ডোপ টেস্টে পজিটিভ হয়েছেন ১৭ জন সদস্য। এদের মধ্যে সরাসরি মাদক কেনাবেচায় জড়িত ৫ জনকে মাদকসহ গ্রেফতার করে পাঠানো হয়েছে কারাগারে। এই ১৭ জনের মধ্যে ইতোমধ্যে ৪ জনকে চূড়ান্তভাবে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। আরও কয়েকজনের নাম চাকরিচ্যুতির তালিকায় রয়েছে। বিএমপির একাধিক সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

এদিকে, মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান জানিয়েছেন, মাদকের বিষয়ে জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করছে বরশিাল মেট্রোপলিটন পুলিশ। মাদকসেবী বা মাদক ব্যবসায়ের সঙ্গে জড়িত কোনও পুলিশ সদস্য ডোপ টেস্টে বা কোনোভাবে অপরাধী প্রমাণিত হলে কোনও ছাড় পাবেন না।

 

অটোচালককে হত্যার অভিযোগ, সস্ত্রীক পুলিশ কনস্টেবল গ্রেফতার

বাংলা ট্রিবিউন
বিভাগ: রাষ্ট্রীয় বাহিনী

রংপুর নগরীতে এক অটোচালককে মারাত্মক নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগে এক পুলিশ কনস্টেবল ও তার স্ত্রীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনার প্রতিবাদে এলাকাবাসী সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন। এ ঘটনায় দু ঘণ্টা ব্যাপী বিক্ষোভের সময় রংপুর কুড়িগ্রাম লালমনিরহাট সড়কে যান চলাচল বন্ধ ছিল। এ সময় বেশ কয়েকটি যানবাহন ভাঙচুর করা হয়েছে।তাজহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আখতারুজ্জামান জানান, এ ঘটনায় মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে। পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, নগরীর পার্কের মোড় কোর্টপাড়া এলাকায় বসবাসকারী রংপুর পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারে কর্মরত কনস্টেবল হাসান আলীর একটি অটো ভাড়া নিয়ে চালাতেন প্রতিবন্ধী নাজমুল ইসলাম। দুদিন আগে অটো চুরি হলে নাজমুলকে বাসায় ধরে এনে স্ত্রী সাথি বেগমসহ হাসান তাকে মারাত্মক নির্যাতন করে। নির্যাতনে নাজমুল মারা গেলে তারা নাজমুলের লাশ ঘরের সিলিংয়ে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা করেছে বলে প্রচার করে।

 

এবার পুলিশের গোপন চোখ

কালের কন্ঠ
বিভাগ: রাষ্ট্রীয় বাহিনী

প্রতিটি থানায় ডিজিটাল চোখ স্থাপনের পর এবার মৌলভীবাজার পুলিশের আরেকটি ভিন্নধর্মী উদ্যোগ পুলিশ সদস্যের গায়ে ১০টি গোপন চোখ বা বডি অন ক্যামেরা (Body worn camera) স্থাপন করে এ ভিন্নধর্মী কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করেছেন মৌলভীবাজার পুলিশ সুপার মো. ফারুক আহমদে পিপিএম বার। বুধবার দুপুরে মৌলভীবাজার শহরে এ ট্রাফিক সদস্যের প্যাকেটে গোপন ক্যামেরা বসিয়ে কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়।

পাবনায় পুলিশের বিরুদ্ধে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগ

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
বিভাগ: রাষ্ট্রীয় বাহিনী

শাহাজান আলী ঝন্টু (৩৫) নামে এক ব্যক্তিকে উপজেলার সিঅ্যান্ডবি বাজার এলাকার মডার্ন হারবাল সেলুন থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। মডার্ন হারবাল সেলুনের শ্রমিক খাইরুল ইসলাম বলেন, বুধবার সন্ধ্যায় ঝন্টু তার সেলুনে শেভ করাতে আসেন। তার মুখে শেভিং ক্রিম লাগানোর পর বেড়া থানার এসআই আব্দুল বারেকসহ কয়েকজন পুলিশ সদস্য এসে শেভ করা বন্ধ করতে বলেন। মুখ ধুয়ে দিলে পুলিশ তাকে নিয়ে যায়। “এ সময় পুলিশ তাকে তল্লাশি করেনি। তার কাছে মাদক রয়েছে বা তাকে সন্দেহভাজন বলেও দাবি করেনি পুলিশ। পরে শুনছি তার কাছে নাকি ৫০টি ইয়াবা পাওয়া গেছে।” ওই এলাকার ফারুক হোসেন ও সাইফুল ইসলাম নামে দুই ব্যক্তি নিজেদের ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী দাবি করে বলেন, ঝন্টুকে আটক করতে দেখে তারা এগিয়ে যান। মুহূর্তের মধ্যে তাকে হাতকড়া লাগিয়ে ধরে নিয়ে যায় পুলিশ।

“আমাদের সামনে তার কাছে কোনো মাদক পায়নি পুলিশ। ঝন্টু মাদক ব্যবসায়ী বা সেবনকারী কোনোটিই নয়। তাকে থানায় নিয়ে মাদক দিয়ে ফাঁসানো হয়েছে।”

 

জাতীয় প্রেস ক্লাব

সদস্য সাংবাদিকদের ৫০ লাখ টাকা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

দেশ রুপান্তর
বিভাগ: গণমাধ্যম

করোনাভাইরাস মহামারীতে সংকটে পড়া প্রেস ক্লাবের সদস্য সাংবাদিকদের সহায়তায় ৫০ লাখ টাকা দিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে তার প্রেস সচিব ইহসানুল করিম গতকাল বুধবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মহামারীকালীন বিশেষ আর্থিক অনুদানের ৫০ লাখ টাকার চেক জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাইফুল আলম ও সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিনের কাছে হস্তান্তর করেন। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এ সময় প্রধানমন্ত্রীর স্পিচ রাইটার মো. নজরুল ইসলাম, উপ-প্রেস সচিব কে এম শাখাওয়াত মুন, উপ-প্রেস সচিব হাসান জাহিদ তুষার, সহকারী প্রেস সচিব এম এম ইমরুল কায়েস ও মু. আশরাফ সিদ্দিকী বিটু উপস্থিত ছিলেন।

 

প্রথম আলো সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলার কার্যক্রম স্থগিতই থাকছে

বাংলা ট্রিবিউন
বিভাগ: গণমাধ্য

ঢাকা রে‌সি‌ডে‌ন্সিয়াল ক‌লে‌জের ছাত্র নাইমুল আবরার রাহাতের (১৫) মৃত্যুর ঘটনায় প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমানের বিরুদ্ধে করা মামলার কার্যক্রমের ওপর হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগের চেম্বার আদালত।

হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের করা আবেদনের শুনানি নিয়ে বুধবার (২৩ ডিসেম্বর) আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর আদালত এ আদেশ দেন।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল এম সাইফুল আলম। অন্যদিকে প্রথম আলো সম্পাদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মোস্তাফিজুর রহমান খান। এর আগে প্রথম আলোর সাময়িকী ‘কিশোর আলোর’ বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ঢাকা রে‌সি‌ডে‌ন্সিয়াল ক‌লে‌জের ছাত্র নাইমুল আবরার রাহাতের (১৫) মৃত্যুর ঘটনায় প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমানের বিরুদ্ধে করা মামলার কার্যক্রম স্থগিত করেন হাইকোর্ট। মামলার কার্যক্রম ৬ মাস স্থগিতের পাশাপাশি রুল জারি করেন আদালত। এ মামলার অভিযোগ গঠনের বিরুদ্ধে করা মতিউর রহমানের আবেদনের শুনানি নিয়ে গত ১৩ ডিসেম্বর বিচারপতি মো. রেজাউল হক ও বিচারপতি মো. লো কর্তৃপক্ষের অবহেলার প্রমাণ পাওয়া গেছে বলে উল্লেখ করা হয়।

 

Abrar Death Case: SC upholds HC order staying trial of Matiur

 The Daily Star
Category:  Media

The Appellate Division of the Supreme Court yesterday upheld a High Court order that stayed the trial proceedings of a case filed against Prothom Alo Editor and Publisher Matiur Rahman over the death of Dhaka Residential Model College student Naimul Abrar Rahat.

Chamber Judge of the Appellate Division Justice Hasan Foez Siddique passed “no order” on a petition filed by the state seeking stay on the HC order.

The HC stay order on the trial proceedings of the case will now remain in force, Matiur’s lawyer Mustafizur Rahman Khan told The Daily Star.

Assistant Attorney General Md Saiful Islam appeared for the state at the hearing. On December 13, the HC stayed for six months the trial proceedings of the case filed against the Prothom Alo editor.

 

Social media and OTT platforms to be monitored; govt forms committee

The Daily Star
Category: Media

In a bid to monitor social media and OTT content, The Ministry of Information (MoI) has formed a committee of 15 on December 23, with the Additional Secretary (Broadcast) of the MoI as the chair, to formulate a policy guideline regarding the contents and advertisements shown on social media sites and OTT platforms. The other members of the committee include the Director General of Bangladesh Television (BTV), the Director General of Bangladesh Betar, the Director General of Department of Films and Publications, the Managing Director of Bangladesh Film Development Corporation (BFDC) and representatives from Bangladesh Telecommunications Company Limited (BTCL), ICT Division and Posts and Telecommunications Division.

 

Pornography spreads amid futile govt ban

 The Daily Star
Category : Media

The government initiative to block pornography websites has proved a futile exercise due to lack of technological knowhow and concerted efforts from the state agencies.

On January 1, 2017, the government launched an anti-porn campaign to create safe and secure internet space for all. In the process, it has blocked 22,000 porn sites in the last three years.

But statistics show only blocking websites has had little effect on Bangladeshi internet users as they are increasingly visiting pornographic websites. Besides, such videos can be easily downloaded and circulated.

The country has a very rigid law titled Pornography Control Act-2012, which says preservation, distribution, selling, displaying, advertising of pornographic contents is a punishable offence.

The offender can be sanctioned with two years of rigorous imprisonment and a fine of Tk 100,000.

 

Body cameras for police need of the hour: experts

The Daily Star
Catagory : Media

Say it will ensure transparency, accountability; no decision yet to. In the wake of “gunfight” incidents involving law enforcement agencies and instances of lethal use of force, equipping police with body-worn cameras can ensure transparency and accountability, according to criminologists and rights activists. A body camera is a wearable audio, video, or photographic recording system used to record events in which law enforcement officers are involved. They are typically worn on the torso, attached to the officer’s uniform. Law enforcers in the country at present use such cameras for traffic control at some places, but it is not mandatory. Besides, there are many check-posts where CCTV  has not been installed, according to a home ministry official. Every time a “gunfight” or any incident involving law enforcement agencies takes place, police give their own versions, which often contradict reality, said rights activists.

ছড়িয়ে দিনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •