Trial Run

সমকামী হওয়ায় পরিবারের হাতে নির্মমভাবে খুন ইরানি যুবক

ছবি: সংগৃহীত

সম্প্রতি ইরানের খুজেস্তন প্রদেশের রাজধানী আহভাজ শহরে মাত্র ২০ বছর বয়সী আলীরেজা ফাজেলি মনফারিদ নামে এক যুবককে সমকামী হবার জন্য তার নিজের পরিবার নির্মমভাবে হত্যা করেছে বলে জানিয়েছে ‘গে কমিউনিটি’ এলজিবিটি-এর অধিকার কর্মীরা।  

কোন কোন প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আলীরেজার শরীর থেকে মাথা বিচ্ছিন্ন করে তাকে নিষ্ঠুরভাবে হত্যা করা হয়েছে।

প্রতিবেদন অনুসারে, চলতি মাসের শুরুতে আলীরেজাকে হত্যা করা হয়। সূত্র মতে, আলীরেজার আপন ভাই এবং চাচাতো ভাই, সমকামীতার জন্য তাকে ইরানের সেনাবাহিনী থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে জানতে পেরে, আলীরেজাকে নির্মমভাবে হত্যা করে।   

ইরানের সমকামী গোষ্ঠী দেশটির শাসক এবং ধর্মান্ধতার জন্য দীর্ঘদিন যাবৎ বর্বরতার শিকার হচ্ছে। তথ্য মতে, ৪ মে ঘটা এই বর্বর হত্যাকাণ্ডে দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। 

আঘিল আবিয়াত, আলীরেজার সঙ্গী জানান, এই মাসের ৮ তারিখে আলীরেজার আমার সাথে তুরস্কে যোগ দেয়ার কথা।

বিবিসি জানান, তারা আলীরেজার অডিও রেকর্ডিং পেয়েছে। যেখানে সে জানায়, তার পরিবারের কারণে সে বিপদে আছে। সে ইরান থেকে পালাতে চায়। 

ইরানে সমকামীতার শাস্তি মৃত্যুদণ্ড এবং যৌন সংখ্যালঘুদের তাদের পরিচয় গোপনে বাধ্য করা হয়। একই লিঙ্গের মানুষের মধ্যকার শারীরিক সম্পর্কের শাস্তিতে জেল খাটতে হয়, শারীরিক নির্যাতনের মুখোমুখিও হতে হয়। দু’জন পুরুষ বা মহিলার মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক ইসলামে অনুমতি দেয়া হয় না। 

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফ সমকামী যুবকের হত্যাকে সমর্থন করে বলেন, আমাদের সংস্কৃতির নৈতিক মানদণ্ড আছে। আমরা এই আদর্শগুলো নিয়ে কাজ করি। মানুষের জীবনযাপনের কিছু সাধারণ নিয়ম আছে। সেই নিয়মই এখানে অনুসরণ করা হয়েছে। 

লিঙ্গ বৈষম্য ইরানে নিষিদ্ধ নয়। সংবিধান অনুযায়ী সমকামিতা এখনও অপরাধ। ইরানের সমকামীরা দেশটির সমকামী ও হিজড়াদের মধ্যকার পার্থক্য নিয়ে অস্পষ্টতার জন্য দীর্ঘদিন ধরে অত্যাচারিত হচ্ছে। পিতামাতারা সমকামী সন্তানদের লিঙ্গ পরিবর্তনে বাধ্য করছেন। সেখানকার চিকিৎসকরাও সমকামীদের থেরাপি দিয়ে থাকেন। মোট কথা ইরানে সমকামিতাকে অসুস্থতা হিসেবে মনে করা হয় আজও।

এসডব্লিউ/এমএন/এসএস/২২৪৩ 


State watch সকল পাঠকদের জন্য উন্মুক্ত সংবাদ মাধ্যম, যেটি পাঠকদের অর্থায়নে পরিচালিত হয়। যে কোন পরিমাণের সহযোগিতা, সেটি ছোট বা বড় হোক, আপনাদের প্রতিটি সহযোগিতা আমাদের নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে ভবিষ্যতে বড় অবদান রাখতে পারে। তাই State watch-কে সহযোগিতার অনুরোধ জানাচ্ছি। 

ছড়িয়ে দিনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আপনার মতামত জানানঃ