Trial Run

প্রাণিসম্পদ কার্যালয়ের কর্মীকে মারধর, আটক আ’লীগ নেতা

ছবি: ঢাকা টাইমস

করোনাকালে খামারিদের প্রণোদনার জন্য মন্ত্রণালয়ে পাঠানো সুপারিশের তালিকায় নিজের নাম না থাকায় নাটোরের সিংড়ায় প্রাণিসম্পদ অফিসের এক কর্মীকে মারধরের অভিযোগে হালিম মোহাম্মদ হাসমত নামের এক আওয়ামী লীগ নেতাকে আটক করেছে পুলিশ। তিনি সিংড়ার সুকাশ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বামিহাল রহমত ইকবাল অনার্স কলেজের প্রভাষক। সিংড়া উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসারের কার্যালয়ে সোমবার( ২২ ফেব্রয়ারি)  দুপুরে ঘটনাটি ঘটে।

মারধরের শিকার সুকাশ ইউনিয়ন এলএসপি শ্রী কৃষ্ণচন্দ্রকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। সে সুকাশের বেলগাড়ী গ্রামের শ্রী গোবিন্দের পুত্র। থানা পুলিশ ও উপজেলা প্রাণিসম্পদ কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, দুপুরে উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসে একটি সভা চলাকালীন সুকাশ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হালিম মো. হাসমত তাকে ফোন করে বাইরে আসতে বলে। সুকাশ বাইরে বের হলে আওয়ামী লীগ নেতা হাসমত, ৪ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহাবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মিন্টু ও ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সভাপতি মঞ্জু তাকে অতর্কিত মারধর শুরু করেন।

হালিম খামারিদের জন্য সরকারের প্রণোদনা তালিকায় তার নাম অন্তর্ভুক্ত করতে বলেন। কিন্ত তিনি কোনো ক্যাটাগরিতে পড়েন না বলে তার নাম তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। তিনি এ নিয়ে তার ওপর ক্ষুদ্ধ ছিলেন। সেই ক্ষোভ থেকেই তাকে মারধর করা হয়।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ড. এম এম খুরসিদ আলম জানান, থানায় কোনো লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়নি। ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে আলোচনাসাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সিংড়া থানার ওসি নূর-এ-আলম সিদ্দিকী জানান, প্রাণিসম্পদ অফিসের কর্মীকে মারধরের অভিযোগে হাসমতকে আটক করা হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে পরবর্তীতে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা, স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের বিরুদ্ধে প্রায়ই বিভিন্ন রকমের অভিযোগ আসে। বিভিন্ন দুর্নীতি, সরকারি অনুদান চুরি, জোর করে জমি দখলসহ আরো বিভিন্ন অপকর্মের সাথে তারা জড়িয়ে পড়েছেন যা অত্যন্ত গর্হিত কাজ। সম্প্রতি এসব যেন বেড়েই চলছে। নিজের ক্ষমতা জাহির করার জন্যই প্রাণিসম্পদ অফিসে গিয়ে আওয়ামী লীগ নেতা এমন গুণ্ডামি করেছেন বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। এ বিষয়ে সরকারের প্রত্যক্ষ পর্যবেক্ষণ এবং প্রশাসনের সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করে দোষীদের কেবল বরখাস্তই নয়, উপযুক্ত শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানান তারা।

এসডব্লিউ/এমএন/ এফএ/২০৫৫

ছড়িয়ে দিনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আপনার মতামত জানানঃ