Trial Run

বড়লেখায় খাসিয়াদের সহস্রাধিক পানগাছ কেটে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা

ছবি: সংগৃহীত

মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউনিয়নের আগারপুঞ্জির খাসিয়াদের সহস্রাধিক পানগাছ কেটে ফেলেছে অজ্ঞাতনামা দুর্বৃত্তরা। শনিবার দিবাগত রাতের কোনো একসময় জুমে পানগাছ কাটার এই ঘটনাটি ঘটেছে। রোববার সকালে পুঞ্জির লোকজন জুমে পান সংগ্রহ করতে গিয়ে পানগাছ কাটা দেখতে পান।

এ ঘটনায় সোমবার (৩১ মে) দুপুরে পুঞ্জির মান্ত্রী (পুঞ্জিপ্রধান) সুখমন আমসে বাদী হয়ে বড়লেখা থানায় অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন।

পুঞ্জির বাসিন্দারা বলেন, সেখানে ৪৮টি খাসিয়া পরিবারের বাস। পানচাষই তাদের একমাত্র জীবিকা। এখন পানের ভরা মৌসুম। রোববার সকালে পুঞ্জির লোকজন জুমে পান সংগ্রহ করতে যান। তারা এ সময় প্রায় এক হাজার পানগাছ কাটা দেখতে পান। তারা ধারণা করছেন, শনিবার (২৯ মে) দিবাগত রাতের কোনো একসময় অজ্ঞাতনামা দুর্বৃত্তরা জুমের পানগাছগুলো কেটে ফেলেছে। এতে তাদের প্রায় ৮ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। এ ঘটনায় সোমবার দুপুরে পুঞ্জির মান্ত্রী (পুঞ্জিপ্রধান) সুখমন আমসে বাদী হয়ে বড়লেখা থানায় অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন।

আগারপুঞ্জি প্রধান সুখমন আমসে মঙ্গলবার (০১ জুন) সকালে বলেন, পানচাষই আমাদের একমাত্র পেশা। এখন পানের মৌসুম। পান বিক্রি করে আমাদের জীবিকা চলে। আমাদের সঙ্গে কারও শত্রুতাও নেই। কোনোদিন কারও কোনো ক্ষতি করিনি। কিন্তু কে বা কারা এই পানগাছগুলো কেটেছে, তা জানি না। আমি থানায় জিডি করেছি। যে বা যারা এই গাছগুলো কেটেছে, আমি তাদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই।

ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের শনাক্ত করে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান খাসিয়া-গারোদের স্থানীয় সংগঠন কুবরাজের সাধারণ সম্পাদক ফ্লোরা বাবলি তালাং।

এ ব্যাপারে বড়লেখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার জিডির সত্যতা স্বীকার করে মুঠোফোনে বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এসডব্লিউ/এমএন/ এফএ/১৩৫৩


State watch সকল পাঠকদের জন্য উন্মুক্ত সংবাদ মাধ্যম, যেটি পাঠকদের অর্থায়নে পরিচালিত হয়। যে কোন পরিমাণের সহযোগিতা, সেটি ছোট বা বড় হোক, আপনাদের প্রতিটি সহযোগিতা আমাদের নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে ভবিষ্যতে বড় অবদান রাখতে পারে। তাই State watch-কে সহযোগিতার অনুরোধ জানাচ্ছি। 

ছড়িয়ে দিনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আপনার মতামত জানানঃ