Trial Run

ছাত্রলীগ নেতাকে কটূক্তির অভিযোগে ১০ জনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল আইনে মামলা

ছবি: সংগৃহীত

সুনামগঞ্জের ধরমপাশা থানায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) শাখা ছাত্রলীগের নেতা আফজাল খানকে  (২৪) নিয়ে ফেসবুকে কটূক্তি করার অভিযোগে ১০ জনকে আসামি করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে।

ছাত্রলীগ নেতা বাদী হয়ে গতকাল শনিবার (১০এপ্রিল) রাতে মামলাটি করেন। তার বাড়ি উপজেলার জয়শ্রী ইউনিয়নের মহেশপুর গ্রামে। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজকল্যাণ বিভাগের স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থী। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের আন্তর্জাতিকবিষয়ক উপসম্পাদক।

সূত্র বলে, আফজাল খান গত ২৯ মার্চ দুপুরে হেফাজতে ইসলামের সহিংসতার ছবি দিয়ে ফেসবুকে একটি পোস্ট দেন। স্থানীয় কয়েকজন বাসিন্দা পোস্টটির স্ক্রিনশট রেখে দেন। ছাত্রলীগ নেতার এই পোস্ট নিয়ে ৭ এপ্রিল হেফাজতে ইসলামের কয়েকজন সমর্থক কটূক্তি ও মানহানিকর কথা লিখে তাদের ফেসবুক আইডি থেকে পোস্ট করেন।

যাদের নামে মামলা হয়েছে তারা হলেন শান্তিপুর গ্রামের শেখ রেজাউল করিম (২২), হরিপুর গ্রামের তুষার আবদুল্লাহ (২১) ও মনিরুজ্জামান মনির (২৩), বাদে হরিপুর গ্রামের উমর ফারুক (২৫), হাফেজ সাঈদ (২০), রবিউল হাসান (২৩), আবদুস শহীদ খান (২২), হাফেজ নোমান আহমেদ (২৫) ও মনির (২৩) এবং মহেষপুর গ্রামের যুবদল কর্মী আকবর রাজীব (৩৫)।

এর আগে ৬ এপ্রিল বিকেলে উপজেলার জয়শ্রী বাজারে আফজাল খানকে হেনস্তা ও আটক করে রাখার ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় ২৯ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা ২০-২৫ জনকে আসামি করে পরের দিন ধরমপাশা থানায় একটি মামলা করেন তিনি। ওই মামলায় দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ছাত্রলীগ নেতা আফজাল খান বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলায় ১০ আসামির মধ্যে ৯ জন হেফাজতে ইসলামের সমর্থক ও ১ জন যুবদল কর্মী।

ধরমপাশা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা ওসি (তদন্ত) মোঃ আতিকুর রহমান বলেন, ছাত্রলীগ নেতার করা মামলাটির তদন্ত কার্যক্রম অব্যাহত আছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

এদিকে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নিয়ে আপত্তিকর ছবি ও পোস্ট শেয়ার করায় সাতক্ষীরার তালায় মমিন মোড়ল (৩০) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ছাত্রলীগ নেতার দায়ের করা মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়। শনিবার (১০ এপ্রিল) বিকেলে তালা উপজেলার শিরুশুনি গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করে তালা থানা পুলিশ। মমিন মোড়ল উপজেলার তেতুলিয়া গ্রামের আজিজ মোড়লের ছেলে।

এর আগে গত ৯ মার্চ মমিন মোড়লের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে তালা থানায় মামলা দায়ের করেন তেতুলিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান। মামলা নং-২।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা তালা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) কাওছার হোসেন জানান, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ফেসবুকে মানহানিকর পোস্ট দেয়ায় মমিন মোড়লকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করা হয়। ওই মামলার ২৫/২৯/৩১ ধারা মোতাবেক তাকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। ছাত্রলীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমান জানান, মমিন মোড়ল গত ৮ মার্চ দুপুরে তার ব্যবহৃত ফেসবুকে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে মানহানিকর পোস্ট করেন। সেটি দেখে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শেখ সাদির নির্দেশে তিনি বাদী হয়ে তালা থানায় মামলা করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. শাহনাজ হুদা বলেন, সংবিধানে নাগরিকদের স্বাধীন মত প্রকাশের অধিকার দিয়েছে। যেখানে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে অনেক ক্ষেত্রে মানুষের মতপ্রকাশের স্বাধীনতা খর্ব হচ্ছে।

“সবার মধ্যে একটা ভীতি যে এইটা বললে কী হবে! এবং আমরাও বলি যে এতকিছু বলো না তোমার বিপদ হবে। এটা স্বাধীন দেশে আমরা কেন করবো? এটা কিন্তু বেশ স্বার্থকভাবে সরকার করে ফেলেছে। সেল্ফ সেন্সরশিপ একটা ভীতি প্রদর্শন, ভীতি মানুষের মধ্যে ঢুকিয়ে দেয়া।”

এসডব্লিউ/এমএন/ এফএ/১৭১৪


State watch সকল পাঠকদের জন্য উন্মুক্ত সংবাদ মাধ্যম, যেটি পাঠকদের অর্থায়নে পরিচালিত হয়। যে কোন পরিমাণের সহযোগীতা, সেটি ছোট বা বড় হোক, আপনাদের প্রতিটি সহযোগীতা আমাদের নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে ভবিষ্যতে বড় অবদান রাখতে পারে। তাই State watch-কে সহযোগীতার অনুরোধ জানাচ্ছি।

ছড়িয়ে দিনঃ
  • 30
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    30
    Shares

আপনার মতামত জানানঃ